পিরোজপুরে পাসপোর্ট করাতে এসে রোহিঙ্গা নাগরিক আটক

প্রকাশিত: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামাল মিয়া নামে মিয়ানমারের এক রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক হয়েছে। অভিযুক্ত রোহিঙ্গা নাগরিক ভাণ্ডারিয়া উপজেলা থেকে ভূয়া জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করে স্থানীয় একটি মুসলিম পরিবারে আশ্রয় নিয়ে গত একমাস ধরে একটি কাপড়ের দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করে আসছিলো। পরে সে বাংলাদেশী পাসপোর্ট বের করে বিদেশ গমনের প্রস্তুতি নিতে গিয়ে ডিবি পুলিশের হাতে ধরা পরে। রোববার রাতে ভাণ্ডারিয়া শহর হতে তাকে পুলিশ আটক করে।

আটককৃত রোহিঙ্গা নাগরিক মো. জামাল মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যের ডেমিনা থানার রাম্যখালীর বাসিন্দা বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকার করে । পিরোজপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মোল্লা আজাদ হোসেন এ তথ্য সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত একমাস পূর্বে রোহিঙ্গা নাগরিক জামাল ভাণ্ডরিয়ায় এসে একটি মুসলিম পরিবারে আশ্রয় নেয় । এরপর সে স্থানীয় একটি কাপড়ের দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ শুরু করে। পাশাপাশি সে অবৈধভাবে বিদেশ যাওয়ার জন্য সে জাতীয় পরিচয়পত্র বের করে ( যার নম্বর-১৯৯৭৭৯১১৪১১০০০৫১০, ভাণ্ডারিয়া-বাংলাদেশ) । সে নিজের পরিচয় তথ্য গোপন করে ভূয়া পিতার নাম মো. মিজান সিকদার ও মাতার নাম শাহীনুর বেগম লিখে ভূয়া জাতীয় পরিচয়পত্রে সংগ্রহ করে। এতে সে ভোটার নম্বর -৭৯০৫১১০০০২৩৬, ভোটার সিরিয়াল নম্বর -১৪৫৩ ও জন্ম তারিখ জন্ম তারিখ- ১০ জুলাই ১৯৯৭ উল্লেখ করে। ওই জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য মতে তাকে ভাণ্ডারিয়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের নাগরিক বলে সনাক্ত করেন নারী কাউন্সিলর বেবী আক্তার এছাড়া নাগরিক সনদপত্র প্রদান করেন ভাণ্ডারিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক নাজমুল আলম।

এসব কাগজপত্র বলে রোববার দুপুরে রোহিঙ্গা জামাল ভাণ্ডারিয়ার ঠিকানা ব্যবহার করে পিরোজপুরের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে আবেদনপত্র জমা দেন। ফিঙ্গার প্রিন্ট দিতে আসে তখন আসল তথ্য বের হয়ে আসে । এসময় তার কথা বলার ধরন শুনে পাসপোর্ট কর্মকর্তা তার ফিঙ্গার প্রিন্ট গ্রহণ বাতিল করেন । খবর পেয়ে রোববার রাতে পিরোজপুর ডিবি পুলিশ ভাণ্ডারিয়া সদর থেকে তাকে আটক করে ।

পিরোজপুর ডিবি পুলিশের উপ পরিদর্শক মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, রোঙ্গিা জামাল তার অপর দুইভাই আবু তৈয়ব (১৩), আবু হায়াত (১০) এবং তিন বোন রুখাইয়া (২২), জামালিডা (১৬) এবং সোমা (৮) সহ ২০১৭ সনে বাংলাদেশে আসে। কক্সবাজার জেলার বালুখালী আশ্রয়ন ক্যাম্পে তারা ছিলেন। জামাল রিফিউজি নাম্বার-১৩২২০১৮০১২০১৪৫৮৫২ । পিতা-মৃত আমির হোসাইন, মাতা-মৃত বেলুয়া বেগম ।

পিরোজপুর পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মো. আবুল হোসেন জানান, রোহিঙ্গা ওই যুবকের ফিঙ্গার প্রিন্ট নেওয়ার সময় রোহিঙ্গা ক্যাম্পের তথ্য বেড়িয়ে আসে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সদুত্তর না দিয়ে সে দ্রুত সটকে পরে। পরে ওই যুবকের বিষয়ে পুলিশকে অবহিত করা হয়। রাতে ডিবি পুলিশ তাকে আটক করলে সত্যতা বের হয়।

এ বিষয়ে পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন ( অপরাধ ও প্রশাসন ) জানান, আটকৃত জামাল একজন মিয়ানমারের নাগরিক। সে পাসপোর্ট করে অবৈধ ভাবে বিদেশে যেতে চেয়েছিল। তাকে পিরোজপুর ডিবি পুলিশ আটক করেছে। এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে ।

Share Button