৫ লাখ টাকা নিয়েও গুলি করে হত্যা, ২৭ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ৮:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ॥

ঘুষের ৫ লাখ টাকা আদায় করে আরো ৫ লাখ টাকা না দেওয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’র নামে সাদ্দাম হোসেন নামে এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে।

এই অভিযোগে টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ২৭ জন পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। পুলিশ ছাড়া এই মামলার অপর আসামি হলেন হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার নূরুল আমিন প্রকাশ নুরুল্লাহ।

মঙ্গলবার নিহত সাদ্দাম হোসেনের মা গুল চেহের এর দায়ের করা ফৌজদারি এজাহার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত মামলা হিসেবে রুজু করেছে।

আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ হেলাল উদ্দীন এই মামলা একজন এএসপি পদমর্যাদার অফিসারকে দিয়ে তা তদন্তের জন্য সিআইডিকে নির্দেশ দিয়েছেন। বাদী পক্ষের আইনজীবী আবদুল বারী ও ইনসাফুর রহামান সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান।

মামলায় হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মশিউর রহমানকে প্রধান ও ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে ২নং আসামি করা হয়েছে।

এজাহারে বাদী অভিযোগ করেন, ৪ জুলাই টেকনাফ হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মশিউর রহমান একদল পুলিশ নিয়ে হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভীবাজার এলাকার মৃত সুলতান আহামদ প্রকাশ বাদশার ছেলে সাদ্দাম হোসেন ও তার ভাই জাহেদ হোসেনকে বাড়ির অদূরে রাস্তা থেকে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।

Sharing is caring!