হিজলায় জেলের বসত ঘর পুড়ে ছাই, ২০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

প্রকাশিত: ৮:২৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২১

হিজলা প্রতিনিধি ॥ বরিশালের হিজলা উপজেলার মেমানিয়া ইউনিয়নের মধ্য চর মেমানিয়া গ্রামে এক জেলের বসত ঘর পুড়ে ছাই। নগদ টাকাসহ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকা।

সরেজমিনে জানাযায়, মেমানিয়া ইউনিয়নের আব্দুল খালেক মাতব্বরের ছেলে অসহায় জেলে আব্দুল সত্তার মাতুব্বরের বসত ঘরে বুধবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে আগুন লাগিয়ে দিলে ঘরে থাকা নগদ সাড়ে তিন লক্ষ টাকা, তিন ভরি স্বর্ণালংকার, ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকার মাছ ধরার জাল, ফ্রিজ, আলমারি, খাট সোকেসসহ সবকিছু পুড়েছাই। সবকিছু পুড়ে গেলেও আল্লাহতালা রক্ষা করেন পবিত্র কোরআন শরীফ।

 

খলিল ও জলিল মাতুব্বরের বসত ঘর যখন পুড়ে প্রায় শেষ তখন তারা দেখতে পান। বিষয়টি নিয়ে নানা মহলে রয়েছে নানা গুঞ্জন।
কিভাবে আগুন লাগে এমন প্রশ্নের উত্তরে আব্দুল সত্তার মাতব্বর বলেন, তিনি মাছ ধরার জন্য নোয়াখালীর আলেকজান্ডার গিয়েছেন কয়েকদিন আগে আর তার স্ত্রী সীমা অসুস্থ থাকার কারণে সন্তানদের নিয়ে ১ দিন আগে তার বোনের বাড়ি গৌরনদীতে ডাক্তার দেখাতে গিয়েছেন। কাউকে সন্দেহ করেন কিনা এমন প্রশ্নে সাত্তার মাতব্বর বলেন রাতে কে আগুন দিয়েছে তা আল্লাহ মাবুদ জানে তবে দীর্ঘ দুই বছর ধরে পাশের বাড়ির একজনের সাথে আমার মামলা চলছে।

এদিকে আব্দুল সত্তার মাতুব্বরের মেয়ের মামলার আসামির বাবা এবং তার স্ত্রী দেয়া মামলার আসামি নুরুল হক গাজী বলেন আমরা ওর দেয়া দুটি মামলার আসামি এমনিতেই আতঙ্কে দিন যাপন করছি তারপরে আমরা কেন ওর ঘরে আগুন দিতে যাব।
আমরা আরো ডাকচিৎকার শুনে এসে আগুন নিভিয়েছি।

 

স্থানীয়রা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলছেন ভিন্ন কথা, তারা বলছে এই দুই পক্ষের শত্রুতা আরো বৃদ্ধি করার জন্য হয়তোবা তৃতীয় কোন শক্তি এই ঘরটি পুড়িয়ে দিয়েছে।

 

হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ অসীম কুমার সিকদার জানান, এ ব্যাপারে হিজলা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী হয়েছে, তদন্ত সাপেক্ষে অবশ্যই এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।