সয়াবিন তেলের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে দফায় দফায় : অতীষ্ঠ ক্রেতারা

প্রকাশিত: ৭:৩৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২১

আরিফ হোসেন, বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বাবুগঞ্জ উপজেলার হাট বাজারে ভোজ্যতেল সয়াবিন ও পাম অয়েলের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে দফায় দফায়। বোতলজাত তেলের তুলনায় খোলা তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় খুচরা বিক্রেতা ফেঁদেছেন নতুন কায়দা। বোতল কেটে বিক্রি করছেন সেই তেল। কোনো কোনো ব্যবসায়ী খোলা সয়াবিন তেলের সঙ্গে বোতলের তেল মিশিয়ে বিক্রি করছেন বলেও রয়েছে অভিযোগ।

এদিকে তেলের ঊর্ধ্বমুখী দামে অতীষ্ঠ নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ। তেলের দামে লাগাম টানতে সরকারি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তারা। খুচরা ব্যবসায়ীদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বাজারে খোলা সয়াবিন তেলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৩৫ টাকায়। প্রতি কেজি পাম অয়েল বিক্রি হচ্ছে ১১৫-১২০ টাকায়। ৫ লিটার মাপের বোতলের সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৫৬০-৬০০ টাকায়। আর ১ লিটার বোতলের সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকায়।

তেলের দাম নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে ক্রেতারা বলেন, ‘বাজারে কোনো কিছুর নিয়ন্ত্রণ নেই। যার যা খুশি তাই করছে। ব্যবসায়ীরা একেক সময় একেক পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে।’

রহমতপুর এলাকার ব্যবসায়ী সুলতান আহমেদ বলেন, ‘নজরদারি বাড়ানো উচিত বলে আমি মনে করি। এক দিকে করোনায় মানুষের জীবন অতীষ্ঠ। ব্যবসা আগের মতো নেই। এর মধ্যে একেকবার একেক পণ্যের দাম বাড়ছে। এতে জনজীবন অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছে।’ তেল ছাড়া তো রান্না করা সম্ভব না। তাই দাম যতই হোক তেল কিনতেই হবে।’
ভোজ্য তেলের দামের বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বলেন, ‘তেলের দাম যেভাবে বাড়ছে, তাতে আমরাও অবাক। যে খোলা সয়াবিন তেল আমরা ৯০ টাকা কেজি বিক্রি করছিলাম, তা দেখতে দেখতে ১৩০ টাকা হয়ে গেছে। ৪৬০ টাকা বিক্রি করা বোতলের ৫ লিটার সয়াবিন তেল এখন কোম্পানি ভেদে ৫৬০-৬০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা হিসাব করে দেখেছি এখন খোলা সয়াবিন তেলের থেকে ৫ লিটারের বোতল কিনলে ক্রেতাদের খরচ কম পড়ে। কারণ ৫ লিটারের বোতলে সয়াবিন তেলে থাকে ৪ কেজি ৭০০ গ্রামের মতো। এতে প্রতি কেজি ১৩০ টাকা করে ধরলে ৫ লিটারের দাম আসে ৬১০ টাকা। কিছু কিছু কোম্পানির বোতলের সয়াবিন তেল এখন ৫৬০ থেকে ৫৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।’ এক মুদি দোকানি বলেন, ‘দাম বেশি হলেও বোতলের থেকে খোলা সোয়াবিন তেলের চাহিদা বেশি। কারণ দাম বেশি হওয়ায় এখন বেশির ভাগ ক্রেতা আধাকেজি, এক কেজি করে সয়াবিন তেল কিনছেন। ক্রেতাদের চাহির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আমরাও প্রতিদিন ১০-১২টি ৫ লিটারের বোতল কেটে খোলা সয়াবিন হিসেবে বিক্রি করছি। এতে আমাদেরও লাভ বেশি হচ্ছে। এদিকে তেলের দামের লাগাম টানতে সরকারি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন দামে অতীষ্ঠ নিম্ন আয়ের মানুষ।