সড়কে প্রাণ গেল পুলিশ কর্মকর্তার

প্রকাশিত: ৮:৩৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৯

ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গিয়ে পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আমিনুল ইসলামের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় চালকের আসনে থাকা তার শ্যালক জাহিদুল ইসলামও (২২) নিহত হন।গতকাল সোমবার রাত তিনটার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ত্রিশাল উপজেলার রায়মনি নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। প্রাইভেটকারটি ময়মনসিংহের ভালুকার দিকে যাচ্ছিল। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

খবর পেয়ে ত্রিশাল ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীরা নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ত্রিশাল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। দুর্ঘটনাকবলিত প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করে ত্রিশাল থানায় রেখেছে পুলিশ।স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সোমবার রাতে এএসআই আমিনুল ইসলাম ভালুকার নিজ বাসার উদ্দেশে নিজস্ব প্রাইভেটকার নিয়ে শ্যালকসহ রওনা দেন। এ সময় ত্রিশাল উপজেলার রায়মনি এলাকায় পৌঁছালে প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে বিলে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে দুজনেরই মৃত্যু হয়।

এর আগে আমিনুল ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া থানায় এএসআই হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ওই থানায় দায়িত্ব পালনকালে রিভলবার চুরির ঘটনায় সাময়িক বরখাস্ত হন। পরে তাকে জেলা পুলিশ লাইন্সে ক্লোজ করা হয়। এর মাত্র ৭ দিনের মাথায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান তিনি।নিহত পুলিশের এএসআই আমিনুল ইসলাম ঢাকার শনিরআখরা এলাকার কাশেম শিকদারের ছেলে ও তার শ্যালক জাহিদুল ইসলাম জেলার ভালুকা উপজেলার পৌর শহরের ৭নং ওয়ার্ডের শফিকুল ইসলামের ছেলে।

ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।উল্লেখ্য, গত ২৫ নভেম্বর ফুলবাড়ীয়া উপজেলা সদরের পুরাতন বাসস্টেশনসংলগ্ন মাস্টার ভিলা নামক একটি ভাড়া বাসা থেকে ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া থানা পুলিশের এএসআই আমিনুল ইসলামের নামে ইস্যু করা রিভলবারটি চুরি হয়। পরে বাসাটি সিলগালা করে দেয় পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে তাকে ক্লোজ করে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এএসআই আমিনুল ইসলাম ভালুকা থানা থেকে ৫/৬ মাস আগে ফুলবাড়ীয়া থানায় যোগদান করেন।

Sharing is caring!