স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালতের কার্যক্রম শুরু : গাউন-কোট পরতে হবে না আইনজীবীদের

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

মোঃ জিয়াউদ্দিন বাবু ॥

স্বাস্থ্যবিধিসহ ১৪টি নির্দেশনা মেনে পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু হয়েছে আদালতের কার্যক্রম। গতকাল বুধবার থেকে সারা দেশের ন্যায় বরিশালেও এই কার্যক্রম শুরু হয়। তবে করোনা মহামারির মধ্যে বিচার কার্যক্রম শুরু হলেও কোন আইনজীবীকে গাউন-কোট পরে আসতে হবে না আদালতে। সিভিল পোশাকেই বিচার কার্যে অংশ নিতে পারবেন তারা। বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ.কে.এম জাহাঙ্গীর হোসাইন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নাজির মো. সালাউদ্দিন ও আদালতের বড় পেশকার হেদায়েত উল্লাহ নবী জাকির জানিয়েছেন, ‘হাইকোর্টের নির্দেশে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গতকাল বুধবার থেকে আদালতের পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে আদালত প্রাঙ্গণে এজলাস কক্ষে স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হচ্ছে।

এদিকে দীর্ঘদিন পরে আদালতের পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরুর ফলে আদালত চত্বরে আইনজীবী এবং বিচার প্রার্থীদের সমাগম ঘটে। ব্যস্ততা বেড়ে যায় আদালতের বিচার কার্যেও। আদালত কার্যক্রম শুরুর ফলে আইনজীবীদের মধ্যেও আনন্দ বিরাজ করছে। তবে প্রথম দিনে কোন মামলার রায় ঘোষণা হয়নি।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এ.কে.এম জাহাঙ্গীর হোসাইন বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আদালতের কার্যক্রম চলাকালীন ৬ জন করে আইনজীবী এজলাসে প্রবেশ করবেন। তাদের কার্যক্রম শেষ হলে অন্য ৬ জন আইনজীবী এজলাসে প্রবেশ করবেন।

তিনি আরও জানান, করোনা কালে কোন আইনজীবীর গাউন এবং কোট পরে আদালতে আসতে হবে না। শুধুমাত্র টাই, মুখে মাস্ক ও হাতে গ্লাভস পরে এজলাসে বিচার কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন তারা। তাছাড়া ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে আইনজীবীদের বসতে হবে। আসামীর প্রয়োজন হলে আদালতে আনা হবে। প্রয়োজন না হলে আনা হবে না।

প্রসঙ্গত, ‘দেশে করোনাকালে গত ২৬ মার্চের পরে দফায় দফায় সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয়। সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসনের নির্দেশে ১০ মে থেকে ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে ৯ মে ভার্চুয়াল আদালতের শুনানীর জন্য আদেশ জারী করা হয়।

Sharing is caring!