সেতু পার হয়েই আইল

প্রকাশিত: ২:১১ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের বেলতলী গ্রাম ও শ্রীপুর পৌরসভার বেড়াইদেরচালা (দোখলা বাজার) বাজারের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে লবলং খাল। ৮৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ খালটি ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার খিরু নদীর সংযোগস্থল থেকে উৎপত্তি হয়ে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদীতে গিয়ে মিলেছে। দীর্ঘদিন দক্ষিণ বেলতলী গ্রামের মানুষ লবলং খাল পারাপার হতো বাঁশের সাঁকো ব্যবহার করে। পরে স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলের সুবিধার জন্য ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের অধীনে বেলতলী রাজ্জাক বেপারীর বাড়ির উত্তর পাশে চকলেট ফ্যাক্টরির নিকট প্রায় ৩১ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যের সেতু নির্মাণ করা হয়।

মাওনা ইউনিয়নের বেলতলী গ্রামের আজমত আলী জানান, সেতু নির্মাণের আগে খালের ওপর বাঁশের সাঁকো দিয়ে মানুষ পারাপার হতো। সাঁকো থেকে নেমে পাঁচ-ছয়ফুট দৈর্ঘ্যের ধানক্ষেতের আইলকে সড়ক হিসেবে ব্যবহার করে বেলতলী গ্রামের মানুষ দীর্ঘদিন চলাচল করতো। বেশ কিছুদিন পর ওই খালের ওপর ৪০ ফুট দীর্ঘ সেতু নির্মাণের পর ওই ক্ষেতের মালিকরা আইল কেটে সরু করে ফেলেন। লবলং খালের স্রোত ও অতিবৃষ্টির ফলে সরু খাল ধসে কোথাও কোথাও কোমর সমান গর্তের সৃষ্টি হয়। এতে সড়কে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা বাঁশ সংগ্রহ করে ওই ধসে যাওয়া অংশে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে। কিন্তু দীর্ঘদিন ওই বাঁশের সাঁকো সংষ্কার না হওয়ায় এক সময় সাঁকো ভেঙে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।এতে প্রায় তিন-চার কিলোমিটার ঘুরে চলাচল করতে হয় স্থানীয়দের।

Sharing is caring!