সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের সাথে ঈদ উদযাপন

প্রকাশিত: ১১:৪৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ত্যাগের মহিমা নিয়ে উদযাপিত হলো মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তর উৎসব ঈদ-উল-আজহা করোনা কালিন সময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পালিত হয়েছে পবিত্র ঈদ উল আযহা। শনিবার (১ আগস্ট) দুপুরে শিশু পরিবারে এতিম শিশুদের সাথে ঈদ উদযাপন করেছেন বরিশালের জেলা প্রশাসক এস, এম, অজিয়র রহমান।

এসময় তিনি কোমলমতি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের নিজ হাতে খাবার তুলে দেয়ার পাশাপাশি আশ্রিত অনাথ শিশুদের সাথে ঈদের দিন দুপুরে একত্রে খাওয়া-দাওয়া করেন।

অপরদিকে শিশু পরিবার এবং ছোট মনি নিবাসের শিশুদের জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে দুটি ছাগল উপহার দেয়ার পাশাপাশি তার সহযোগিতায় শিশু পরিবারের শিশুদের জন্য একটি গরু কোরবানি দেয়ার ব্যবস্থা করেন। একই সময় বরিশাল বিভাগীয় বেবী হোমে আশ্রিত অনাথ শিশুদের জন্য জেলা প্রশাসকের দেয়া ঈদের বিশেষ খাবার পরিবেশন করেছে সমাজসেবা অধিদপ্তর। জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলায় অবস্থিত বরিশাল বিভাগীয় বেবী হোম (ছোটমনি নিবাসে) দেশের বিভিন্ন স্থানে কুড়িয়ে পাওয়া আশ্রিত অনাথ শিশুদের বসবাস। তাদের জন্য ঈদের দিন শনিবার সকালে বরিশাল জেলা প্রশাসকের ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রদান করা দু’টি খাসি কোরবানী দেয়া হয়।

অপরদিকে বরিশাল নদী বন্দরের পথ শিশু ও ছিন্নমূল দরিদ্র মানুষের মাঝে সাংবাদিক সংগঠনের আয়োজনে জেলা প্রশাসন ও অপরাজেয়-বাংলাদেশ এর সার্বিক সহযোগিতায় দুপুরে খাবার আয়োজন করা হয়। সেখানে জেলা প্রশাসক নিজ হাতে তাদের খাবার তুলে দেন। এদিকে পবিত্র ঈদ-উল-আজহার মহান দিনে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগীদের জন্য জেলা প্রশাসন বরিশালের পক্ষ থেকে ফল-ফলাদিসহ ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার (০১ আগস্ট) বেলা ১১ টায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নাজমুল হূদা শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের ইনচার্জ মোঃ আবুল কালাম আজাদের নিকট এ সামগ্রী হস্তান্তর করেন।

এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক এস, এম, অজিয়র রহমান বলেন, পবিত্র ঈদ-উল-আজহা আমাদের ত্যাগ, শান্তি, ভ্রাতৃত্ববোধ ও সহমর্মিতার শিক্ষা দেয়। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের ফলে সৃষ্ট মহামারীতে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন যে সকল রোগী রয়েছেন, তারা ঈদের আনন্দ এবার উদযাপন করতে পারছেন না। এ কারণে আক্রান্ত রোগী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের সাহস যোগানো, মানসিক শক্তি বৃদ্ধি ও ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নাজমূল হুদা জানান, পরিবার ছাড়া টানা দ্বিতীয় বারের মতো ঈদ বরিশালে করছি। এবার আমার ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি হচ্ছে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সাথে। নিজের দায়িত্ব বোধের জায়গা থেকে জেলা প্রশাসক স্যার যে নির্দেশনা দিচ্ছেন তা বাস্তবায়ন করছি। জেলা প্রশাসন বরিশালের পক্ষ হতে করোনা রোগীদের জন্য উপহার সামগ্রী আর ফলমূল নিয়ে আসলাম।

Sharing is caring!