সার্ভার জটিলতায় বিসিসিতে জন্মনিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ

প্রকাশিত: ১০:৩৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সার্ভার জটিলতায় বন্ধ রয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের জন্মনিবন্ধন কার্যক্রম। এমনকি কেন্দ্রীয়ভাবে সৃষ্ট এ জটিলতার কারণে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন আবেদন ফরমও জমা নিচ্ছে না তারা। গত পাঁচ দিন ধরে এ কার্যক্রম বন্ধ থাকায় অনেকটা বিপাকে পড়েছেন জন্ম এবং মৃত্যু সনদ গ্রহণকারীরা। যদিও খুব শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান হবে বলে আশাবাদী সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন থেকে জানানো হয়েছে, ‘জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কেন্দ্রীয় সার্ভার উন্নয়ন কাজের জন্য বর্তমানে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন অনলাইন কার্যক্রম বন্ধ আছে। এ কারণে কোন প্রকার ফরম জমা নেয়া বন্ধ রাখা হয়েছে।
ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় সার্ভার চালু না হওয়া পর্যন্ত জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন থেকে। কেন্দ্রীয় সার্ভার চালু হলে পরবর্তীতে এ বিষয়ে জনসাধারণকে জানিয়ে দেয়া হবে জানিয়ে সাময়িক এ অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে নগর কর্তৃপক্ষ।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ‘বর্তমান সময়ে স্কুল, কলেজ এবং মাদ্রাসাগুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আবার কোন কোন ক্ষেত্রে চাকরির ক্ষেত্রেও জরুরি ভাবে প্রয়োজন হচ্ছে জন্ম নিবন্ধনের।

কিন্তু এমন মুহূর্তে গত চার দিন ধরে বন্ধ রয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম। সার্ভার সমস্যার কারণে নিবন্ধনের কোন ডাটা এন্ট্রি করতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

এ কারণে প্রায় দেড় হাজারের মতো জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের আবেদন জমা পড়ে আছে সিটি কর্পোরেশনের এনেক্স ভবনে। কবে নাগাদ এগুলো ছাড় পাবে সে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নন সংশ্লিষ্টরা। যে কারণে নতুন করে আবেদন ফরম গ্রহণ বন্ধ রেখেছে নগর কর্তৃপক্ষ।

সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা স্বপন কুমার বলেন, ‘এ সমস্যা আমাদের এখান থেকে সৃষ্টি হয়নি। ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে সৃষ্টি হয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের পদ্ধতিগত পরিবর্তন এবং আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। এ কারণে পুরানো সার্ভার বন্ধ রেখে নতুন সার্ভার চালু করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘কবে নাগাদ এ সমস্যার সমাধান হবে সেটা নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হচ্ছে না। তবে আমরা প্রতিদিনই স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের রেজিস্ট্রার জেনারেল এর সাথে যোগাযোগ রাখছি। খুব দ্রুতই এ সমস্যার সমাধান হবে বলে তিনি আমাদেরকে জানিয়েছেন।