সম্পাদক পরিষদ চাঁদাবাজ নির্মূলে সচেষ্ট- সভাপতি কাজী বাবুল

প্রকাশিত: ৭:০১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥

সাংবাদিকদের সাথে পুলিশের সম্পর্কটা অনেকটা বিনিসুতার মালা ও আদর্শের বন্ধন। এমন মন্তব্য করেছেন বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো: শফিকুল ইসলাম। গতকাল বিকেলে সম্পাদক পরিষদ বরিশাল’র নেতৃবৃন্দ’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও মতবিনিমিয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় ডিআইজি বলেন, সাংবাদিক ও পুলিশের কাজ এক ও অভিন্ন। সাংবাদিকরা রাষ্ট্রের আইকন। কারণ রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ সকল তথ্য সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানা সম্ভব হয়। পুলিশ সেই অনুযায়ী কাজ করে। বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করার সুবাদে মাদক, অন্যায় ও দুর্নীতি প্রতিরোধে কাজ করতে গিয়ে সাংবাদিকদের সহযোগিতা পেয়েছি সবসময়।

তিনি আরও বলেন, সম্পাদক পরিষদ একটি শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে ইতোমধ্যে আত্মপ্রকাশ করেছে। ভবিষ্যতে দেশের যে কোনো প্রয়োজনে সম্পাদক পরিষদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

 

এছাড়া সম্পাদক পরিষদের ও সাংবাদিকদের যে কোনো সহযোগিতা দিতে আমি প্রস্তুত। তাই সাংবাদিক ও পুলিশ এক হয়ে কাজ করবে। সভায় সভাপতির বক্তব্যে সম্পাদক পরিষদের সভাপতি কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল বলেন, নির্যাতিত সাংবাদিকদের পাশে থাকবে সম্পাদক পরিষদ বরিশাল। রাষ্ট্রের যে কোনো দুর্যোগ মুহূর্তে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাংবাদিক ও পুলিশ মাঠে থেকে কাজ করে।

বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি একজন সাংবাদিকবান্ধব পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি সবসময় সাংবাদিকদের সহযোগিতা করে আসছেন। আগামীতেও তিনি সাংবাদিকদের বিপদে পাশে থাকবেন। এছাড়াও দেশের প্রয়োজনে সাংবাদিকরা কাজ করে যাবেন। সম্পাদক পরিষদ চাঁদাবাজ সাংবাদিকদের মিডিয়াঅঙ্গন থেকে নির্মূলে সদা সচেষ্ট। এ লক্ষ্যেই কাজ করছে সম্পাদক পরিষদ।

অনুষ্ঠানে সম্পাদক পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী মফিজুল ইসলাম কামাল, উপদেষ্টা মো: মিজানুর রহমান, কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম, সহ-সভাপতি সহ-সভাপতি এ্যাড. এসএম রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মো: খলিলুর রহমান, সহ-সভাপতি ডা: নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক শেখ শামীম, সহ-সাধারণ সম্পাদক তারেকুল আলম অপু, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মো: জাহাঙ্গীর, দপ্তর সম্পাদক তালুকদার মাসুদ, অর্থ সম্পাদক মারুফ হোসেন, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক নাছির আহম্মেদ রনি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো: মোস্তফা কামাল, নির্বাহী সদস্য কাজী আল মামুন, সদস্য তাওহিদুল ইসলাম জামাল উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!