সংবাদ প্রকাশের পরে হিজলার মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে সরকারি খরচে চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রেরণ

প্রকাশিত: ৭:২২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২০

হিজলা প্রতিনিধি ॥

 

বরিশালের হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের গুয়াবাড়িয়া গ্রামের আলম মাস্টারের ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন মোহাম্মদ উল্লাহকে দীর্ঘ প্রায় চার বছর গৃহবন্দি রাখা হয়। কিছুদিন পূর্বে হিজলার সংবাদ কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে রহস্য উদঘাটন করে সংবাদ প্রকাশ করেন। সংবাদটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার বকুল চন্দ্র কবিরাজ এর দৃষ্টিতে আসে। এরপর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজ উদ্যোগে উপজেলা সমাজ কল্যাণ পরিষদের মাধ্যমে রবিবার চিকিৎসার জন্য পাবনা মানসিক হাসপাতাল প্রেরণ করেন যুবককে।

 

সরজমিনে জানা যায়, মোহাম্মদ উল্লাহর বাবা দীর্ঘদিন যাবৎ বাড়িতে থাকেন না, মা ও অসুস্থ। যার কারণে মোহাম্মদ উল্লাহর সাথে তার ভাই আহমদ উল্লাহকে দেয়া হয়েছে।

 

পরিবারের পক্ষ থেকে মোহাম্মদ উল্লাহ’র ভাই আহমদ উল্লাহ জানান, আসলে তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে আটক করে রাখা হয়নি, তিনি মাঝেমধ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে মানুষের সাথে খারাপ আচরণ সহ কিছু দুর্ঘটনায় জড়িয়ে পড়তেন। এমনকি মাঝেমধ্যে তাকে খুঁজেও পাওয়া যেত না, ২/৩ পরে পাওয়া যেত। আহমদ উল্লাহ আরো জানান, দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ বাবা আমাদের পরিবারের কোনো খোঁজখবর নেয়নি, এমনকি বাবার সকল সম্পত্তি তার ভাইদের কে লিখে দিয়েছে; আমরা এখন অসহায়।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বকুল চন্দ্র কবিরাজের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমার দৃষ্টিগোচর হওয়ার পরে এই উদ্যোগটি নিয়েছি এবং তার সকল প্রকার চিকিৎসার খরচ উপজেলা সমাজসেবা পরিষদের পক্ষ থেকে দেয়া হবে। শুধু তাই নয়, পাবনার নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেছি।

স্থানীয় সচেতন মহলের অনেকেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, তিনি মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।