শেবাচিমে করোনা রোগীদের সুচিকিৎসায় এগিয়ে এলো এমইপি গ্রুপ ও বিএমএ

প্রকাশিত: ৫:০২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৭, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশের করোনাকালীন সময়ে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবায় এগিয়ে এলো এমইপি গ্রুপ এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন। করোনা আক্রান্ত রোগীদের মানসম্মত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে তিনটি হাই ফ্লো ন্যাজাল কেনুলা অক্সিজেন মেশিন হস্তান্তর করেছেন তারা। যার মধ্যে দুটি হাই ফ্লো ন্যাজাল কেনুলা অক্সিজেন মেশিন উপহার দেওয়া হয়েছে এমইপি গ্রুপের পক্ষ থেকে। যা দিয়ে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগীদের অক্সিজেন সেবা প্রদান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

জানাগেছে, হাই ফ্লো ন্যাজাল কেনুলা অক্সিজেন মেশিন এর অভাবে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা চরমভাবে ব্যাহত হয়। এর অভাবে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের উন্নত সেবা পেতে যেতে হয় ঢাকায়। কিন্তু ততক্ষণে চিকিৎসা না পেয়েই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন অনেক রোগী। যার বড় একটি উদাহরণ বরিশাল নগরীর রাহাত আনোয়ার হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. মো. আনোয়ার হোসেন’র মৃত্যুর বিষয়টি।

এদিকে সরকারিভাবে সরবরাহ না থাকা এই অক্সিজেন মেশিন সরবরাহে বরিশালবাসীর কাছে সহযোগিতা চান শেবাচিম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাদের সেই আহ্বানে সাড়া দিয়েছে এমইপি গ্রুপ। আর্ত মানবতার সেবায় তাদের পক্ষ থেকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুটি হাই ফ্লো ন্যাজাল কেনুলা অক্সিজেন মেশিন উপহার দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ওই কোম্পানির পক্ষ থেকে দেওয়া মেশিন দুটি গ্রহণ করেন শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন।

এসময় শেবাচিম হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. জসিম উদ্দিন, উপ-পরিচালক ডা. আব্দুর রাজ্জাক, সহকারী পরিচালক ডা. এসএম মনিরুজ্জামান, এমইপি গ্রুপের ফ্যাক্টরি জিএম ইয়া হিয়া ও সিনিয়র এজিএম (মার্কেটিং) সৈয়দ আহম্মদ খান মাহিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) বরিশাল জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মো. মাশরেফুল ইসলাম সৈকত জানিয়েছেন, ‘ইতিপূর্বে বিএমএ এবং বরিশালের চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে অপর একটি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ইউনিটে হস্তান্তর করা হয়েছে। গত ২০ জুন থেকে করোনা ওয়ার্ডে ওই অক্সিজেন মেশিনটির ব্যবহার কার্যক্রম শুরু হয়। দেশের চলমান সংকটে করোনা রোগীদের সুচিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এভাবেই সমাজের বিত্তবানদের মানবতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান এই চিকিৎসক নেতা।

Sharing is caring!