শেবাচিমে একদিনে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে তিন জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সাড়ে ৭ ঘণ্টার ব্যবধানে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে তাদের মৃত্যু হয়।

এ নিয়ে শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৯ জন। যার মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৩ জন। আর মৃত্যু হওয়া ৮২ জনের করোনার রিপোর্ট নেগেটিভ। তাছাড়া এখনো ৪ জনের রিপোর্ট অপেক্ষমাণ রয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানাগেছে, ‘সবশেষ বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় রনপ্রিয় দাস (৬৫) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। তিনি বরিশাল নগরীর বিএম কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা বমনী রঞ্জন দাসের ছেলে।

১৩ জুলাই বেলা সাড়ে ১২টার দিকে করোনার উপসর্গ নিয়ে তাকে শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। পরে পরীক্ষা করা হলে তার করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। এরপর চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় তার মৃত্যু হয়।

এর ১৫ মিনিট আগে করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে হোসেন আলী (৭০) নামের বৃদ্ধের। তিনি জেলার মুলাদী উপজেলার নাজিরপুর গ্রামের মোতালেব মৃধার ছেলে।

গত ১৪ জুলাই বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তাকে শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকাল পৌনে ৪টায় তার মৃত্যু হয়। তবে তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা সেটা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তার রিপোর্ট অপেক্ষমাণ রয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মৃত্যু হয়েছে আলতাফ হোসেন (৪৮) নামের এক ব্যক্তির। তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তিনি বরগুনার তালতলী উপজেলার মফিজউদ্দিনের ছেলে।

গত ১৪ জুন রাত ৮টায় তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। পরে করোনা শনাক্ত হওয়ায় সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার সকালে তিনি মারা যান।