লালমোহনে চাচার যৌন লালসায় ১২ বছরের কিশোরী ৬ মাসের অন্ত:সত্ত্বা


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ৬:৩৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২০

এসবি মিলন, লালমোহন প্রতিনিধি ::

চাচার যৌন লালসার শিকার হয়ে ৬ মাসের অন্ত:সত্ত্বা হয়েছে ১২ বছরের কিশোরী। এ ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হলে লম্পট চাচাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ভোলার লালমোহন পৌর এলাকার ৯নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। ধৃত লম্পট সবুজ (২৯) একই এলাকার আবুল বশারের ছেলে।

 

লালমোহন থানার ওসি মাকসুদুর রহমান মুরাদ জানান, এ ঘটনায় কিশোরীর মা জহুরা বিবি বাদী হয়ে রবিবার মামলা করেছেন। পরে অভিযুক্ত সবুজকে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

 

স্থানীয় ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিরন হায়দার বলেন, বিষয়টি সামাল দেয়ার মত নয়। তাই আইনানুগভাবেই বিচার হওয়া উচিৎ।

 

মামলার এজাহার ও স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে, গত প্রায় ৮ বছর আগে মারা যান ভুক্তভোগী কিশোরীটির পিতা রুহুল আমিন। সেই থেকে কিশোরীর মা জহুরা বিবি পরের বাড়িতে কাজ নেন এবং অর্জিত পারিশ্রমিক দিয়ে শিশু সন্তানদের জীবন নির্বাহ করতে থাকেন। এরই মধ্যে ধীরে ধীরে বড় হতে থাকে বড় সন্তান কিশোরীটি। তাকে একা ঘরে রেখেই প্রতিদিন জীবিকা নির্বাহের তাগিদে জহুরা বিবি যেতেন কাজে।

 

এই সুযোগে কিশোরীটির প্রতি ললুপ দৃষ্টি পড়ে প্রতিবেশী সম্পর্কে চাচা এবং এলাকার দোকানদার সবুজের। লম্পট সবুজ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীটির সাথে যৌন লালসা চরিতার্থ করতে করতে কিশোরীটি ৬ মাসের অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সন্তানের অস্বাভাবিক অবস্থা আঁচ করতে পেরে মা জহুরা বিবি জানতে চাইলে সব ঘটনা মায়ের কাছে প্রকাশ করে কিশোরীটি। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

 

পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় থানায় এজাহার দায়ের করেন কিশোরীর মা জহুরা।