লবণ নিয়ে গুজব, যা বলল মন্ত্রণালয়

প্রকাশিত: ৯:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

লবণের দাম বৃদ্ধি নিয়ে চলমান গুজবের মধ্যে দেশে পর্যাপ্ত লবণ মজুত রয়েছে বলে জানিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়। ভোক্তা-সাধারণকে লবণের দাম বৃদ্ধি নিয়ে নিয়ে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বানও জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

আজ মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ছয় লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুত রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুত রয়েছে। তারপরও একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

এতে আরও বলা হয়, সারা দেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুত রয়েছে। পাশাপাশি চলতি নভেম্বর মাস থেকে লবণের উৎপাদন মৌসুম শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে।দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কমবেশি এক লাখ মেট্রিক টন। সেখানে লবণের মজুত আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন। সেই হিসাবে লবণের কোনো ধরনের ঘাটতি বা সংকট হবার প্রশ্নই ওঠে না বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

লবণের বাজার নজরদারি করতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে কন্ট্রোল রুম খুলেছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক)। বিসিক এর প্রধান কার্যালয়ে খোলা কন্ট্রোল রুমের নম্বর হচ্ছে ০২-৯৫৭৩৫০৫ (ল্যান্ড ফোন), ০১৭১৫-২২৩৯৪৯ (সেল ফোন)। লবণ-সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের প্রয়োজনে কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য বলা হয়েছে।এদিকে, লবণ নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে আজ মঙ্গলবার নেত্রকোণার খালিয়াজুরী উপজেলার এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার হবিগঞ্জে দুই ব্যবসায়ীকে ১০ দিন করে কারাদণ্ড ও অপর দুই ব্যবসায়ীকে এক হাজার করে অর্থদণ্ড দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসির আরাফাত। আর সুনামগঞ্জে ২ ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সিলেটে বেশি দামে লবণ বিক্রির অভিযোগে ব্যবসায়ীকে না পেয়ে এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছেন সিলেট সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমন্ত ব্যানার্জি ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন।

Sharing is caring!