রোনালদোর গোলগুলো করার লোক নেই রিয়ালের

প্রকাশিত: ২:৪৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০

স্প্যানিশ সুপার কাপের এবারের অদ্ভুত নিয়মটাই বাঁচিয়ে দিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদকে। এবার অন্তত কোনো শিরোপা বিহীন মৌসুম কাটাতে হবে না তাদের। কোপা ডেল রে থেকে এর মাঝেই ছিটকে গেছে তারা। চ্যাম্পিয়নস লিগ ও লা লিগার আশা এখনো আছে। কিন্তু দলের ফরোয়ার্ড প্রতিপক্ষের গোলমুখের সামনে এসে যেভাবে মুখ থুবড়ে পড়ছেন তাতে রিয়ালের সাফল্যের আশা অনেক সমর্থকই হয়তো ছেড়ে দিয়েছেন। রিয়ালের এমন হতশ্রী চেহারার পেছনের কারণ খোঁজা কঠিন নয়, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

আরও পরিষ্কার করে বললে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর অভাব। জুভেন্টাসের কাছে পর্তুগিজ অধিনায়ককে বিক্রি করে হয়তো ১০০ মিলিয়ন ইউরো পেয়েছে রিয়াল, কিন্তু যে ক্ষতিটা হয়েছে সেটা অর্থে মূল্যায়ন করা সম্ভব নয়। গত মৌসুমে মার্চের মধ্যে তিনটি প্রতিযোগিতা থেকেই ছিটকে গেছে। সেটা শুধুমাত্র একজন পরীক্ষিত গোল স্কোরারের অভাবে। এ মৌসুমে প্রথম দিকে করিম বেনজেমা কাজ চালিয়ে নিচ্ছিলেন। মিডফিল্ডাররাও জোগান দিচ্ছিলেন কিছু গোল। কিন্তু মৌসুমের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এসে গোল খরায় ভুগছে রিয়াল।

গত তিন ম্যাচে দুটিতে হেরেছে রিয়ালে। অন্যটিতে ড্র করেছে। সাবেক রিয়াল কোচ বার্ন্ড শুস্টারের দাবি এক রোনালদোর শূন্যস্থান পূরণ না করাটাই কাল হয়েছে দলের জন্য। এডেন হ্যাজার্ড বা গ্যারেথ বেলরা গোল করার ভারটা নিজের কাঁধে তুলে নেননি, ‘রিয়াল মাদ্রিদের জন্য সমস্যা হলো ক্রিস্টিয়ানো যাওয়ার পর কোনো নম্বর নাইন পায়নি।’

আগামী পরশু এল ক্লাসিকো। সবচেয়ে কঠিন সময়ে বার্সেলোনার মুখোমুখি হচ্ছে রিয়াল। শুস্টার অবশ্য বার্সেলোনাকেও খুব একতা ভালো বলছেন না, ‘আমরা খুব অলস এক মৌসুম দেখছি, খুব বাজে। আমার মনে হয় না এবার চ্যাম্পিয়নস লিগ কোনো স্প্যানিশ দল জিতবে। আমি এ ম্যাচ (এল ক্লাসিকো) দেখার জন্য বসে আছি। কিন্তু মৌসুমের এমন অবস্থায় আছি যে ড্রও খুব ভালো ফল। আমার এটাই পছন্দ হচ্ছে না। দুই দলেরই সমস্যা আছে। ফলে কোন দল এ ম্যাচে বেশি উজ্জীবিত থাকে সেটা দেখার আগ্রহ পাচ্ছি। এক দল ঘরে খেলছে এটা অবশ্য সুবিধা।’

সাধারণত ঘরের মাঠের সুবিধা আদায় করে দলগুলো। কিন্তু এল ক্লাসিকোতে যে বার্নাব্যুতে গত চার মৌসুমে দাপট বার্সেলোনাই দেখাচ্ছে!

Sharing is caring!