রাজধানীতে উদ্ধার হওয়া লাশটি গৌরনদীর পলির

প্রকাশিত: ৬:০৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ॥ অবশেষে ঢাকার সবুজবাগ থেকে উদ্ধার অজ্ঞাত নারীর লাশের পরিচয় মিলেছে। ওই নারীকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারী হিসেবে একজনকে ইতোমধ্যেই গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১৬ জুন ঢাকার সবুজবাগ থানাধীন কুসুমবাগ এলাকার সেলিম নামের এক ব্যক্তির বাড়ির আন্ডারগ্রাউন্ডে থাকা পানি থেকে অজ্ঞাত ওই নারীর গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। অজ্ঞাত হিসেবেই সেই লাশের দাফন সম্পন্ন হয়। পুলিশের তদন্ত বেরিয়ে এলো সেই নারীর প্রকৃত পরিচয়।

ঢাকার সবুজবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুব আলম জানান, হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়া ওই নারীর নাম পলি বেগম (৩৫)। তার বাড়ি বরিশাল জেলার গৌরনদী থানার বাদুরতলা গ্রামে। তার পিতার নাম মোঃ আলমগীর হোসেন। এ ঘটনায় মোঃ সাদা মিয়া (৩৭) নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত সাদা মিয়ার বরাত দিয়ে ওসি আরও জানান, উদ্ধারকালে ওই নারীর হাত বাধা ও মুখ কাপড় দিয়ে পেঁচানো ছিল। লাশ উদ্ধারকালেই বোঝা যাচ্ছিল, ওই নারী নির্মম হত্যাকা-ের শিকার হয়েছে। পরদিন সবুজবাগ থানায় পুলিশের তরফ থেকে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

তদন্তের এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার ২ জুলাই রাতে গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা থানার পুটিমারী এলাকা থেকে হত্যাকা-ে জড়িত থাকার অভিযোগে সাদা মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। সাদা মিয়া পেশায় সিএনজি চালক।

তিনি কুসুমবাগের সেলিমের বাড়িতে ভাড়ায় থাকতেন। সাদা মিয়া নিহত পলিকে চলতি বছরের ১৩ জুন সন্ধ্যায় ফুসলিয়ে তার বাসায় নিয়ে যান। বাসায় তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করলে পলি বাধা দেন। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে সাদা মিয়া পলিকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। হত্যার পর লাশ বাসার ঘাটের নিচে লুকিয়ে রাখেন। লাশ গুম করার জন্য সুযোগ বুঝে ওইদিনই রাত তিনটার দিকে সেলিমের বাড়ির আন্ডারগ্রাউন্ডের পানিতে পলির হাত বেঁধে ও মুখ কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে ফেলে চলে যান।

Sharing is caring!