রাঙ্গাবালীতে টাকার বিনিময় পেতে হয় বয়স্ক ও বিধবা ভাতা

প্রকাশিত: ৭:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২০

কামরুল হাসান রুবেল, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চালিতাবুনিয়া ইউনিয়নের বয়স্ক ও বিধবা ভাতাভোগীদের কাছ থেকে ব্যাংক খরচের নামে টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। পুরাতন কার্ডপ্রতি ৫০ থেকে ১০০ এবং নতুন কার্ড প্রতি ১০০০ থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য ও চৌকিদারদের বিরুদ্ধে। কার্ডধারীদের কাছ থেকে টাকা তুলেছেন বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রথমবার ১০০০ থেকে ৩০০০ টাকা ও পরবর্তিতে ৫০ থেকে ১০০ টাকা করে নিয়েছেন।

সোম, মঙ্গল ও বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, বাহেরচর কৃষি ব্যাংকের সামনে দাঁড়ানো লোক জনের কাছ থেকে ইউপি চেয়ারম্যানের বরাদ দিয়ে মোশারফ চৌকিদার ও মাহবুব চৌকিদার বয়স্ক এবং বিধবা ভাতা ভোগীদের কার্ড জমা নিচ্ছেন। কার্ডের সঙ্গে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৫০ থেকে ১০০ টাকা করে আদায় করছেন। তবে তাড়াতাড়ি দেয়াসহ বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে অনেকের কাছ থেকে বেশি টাকাও নিচ্ছেন।

ভুক্তভোগী কাঞ্চন আলী (৮০) অভিযোগ করে বলেন, চালিতাবুনিয়া থেকে রাঙ্গাবালী আইতে আমাগো ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা খরচ হয়। এখানে আবার দিতে হয় ১০০ টাকা। পাই ৩০০০ টাকা। তাহলে থাকে কয় টাহা, এইয়া দিয়া চলমু কেমনে?

আম্বিয়া খাতুন(৩০) তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, বাবা আমি বুড়া মানুষ হাঁটতে চলতে পারিনা। পোলাপানে খাওয়ায়না কষ্টে কইরা চলি, সবাই জানে। সরকার দিলে খাই না দিলে না খাই! তার পরও আমার কাছ থেকে ৫০ টাহা নিছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিধবা সুরাইয়ার এক স্বজন জানান, ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় করে সুরাইায়ার বিধবা ভাতা থেকে ৫০০ টাকা রেখে দিয়েছে তাদের চৌকিদার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নারী জানান, চালিতাবুনিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়র্ডের মৃত বাবলু মিয়ার স্ত্রী বিধবা শিরিনা খাতুনের হিসাব অনুযায়ী ১২০০০ টাকা পাওয়ার কথা থাকলেও তাকে দেয়া হয়েছে ৯০০০ টাকা।

অভিযুক্ত মোশারফ চৌকিদার ও মাহবুব চৌকিদারের কাছে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তারা সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন।
চালিতাবুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমি খবর পেয়ে চৌকিদারদের কল করেছি। তখন তারা আমার সাথে বলেছেন, আমরা আমাদের যাতায়াত খরচ বাবদ ৫০ টাকা করে নিয়েছিলাম। আপনি নিষেধ করলে আমরা এখন আর নিবনা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাশফাকুর রহমান বলেন, বয়স্ক ও বিধবা ভাতাভোগীদের মত গরীব অসহায় মানুষদের কাছ থেকে টাকা নেয়া অবশ্যই অন্যায়। টাকা নেয়ার ব্যাপারে আমার কাছেও কিছু খবর এসেছে। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিব।

Sharing is caring!