মূল্য তালিকা নেই কোন দোকানে

রমজান আসতে না আসতেই বেড়ে গেছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ১১:৩৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২১
মোঃ জিয়াউদ্দিন বাবু ॥
রমজান শুরু হতে না হতেই বাজারের জিনিসপত্রের দাম বেড়েই চলছে। তবে মুরগীর দাম কিছুটা কমরেও বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে এ অবস্থা। পোটল বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা, করল্লা ৪০ টাকা, লাপা ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা, পেপে ৩০ টাকা, লেবু হালি ৪০ থেকে ৬০ টাকা, কাচা কলা ৩০ টাকা, পুই শাক ৩০ টাকা, টমোট ১৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে পেয়াজ কিছুটা কমেছে ৩০ থেকে ৩০ টাকা দরে পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে। আলু বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা প্রতিকেজি। মুরগীর দামও কিছুটা কমেছে সোনালী মুরগী বিক্রি হচ্ছে ২৭০ টাকা করে লেয়ার বিক্রি হচ্ছে ২১৫ টাকা, ব্রয়লার ১৪৫ টাকা, গরুর মাংস ৫৫০ টাকা থেকে ৫৮০ টাকা করে। খাসি বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা করে। রুই কাতলা বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩ শত টাকা করে। তেলাপিয়া মাছ ১ শত থেকে ১শত ৫০ টাকা ছোট বড় মিলিয়ে। পাঙ্গাস বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা করে। রুপচাদা ৬৫০ টাকা, কৈ-শিং মাছ বিক্রি হচ্ছে ২ শত টাকা করে, ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৫ শত থেকে ৮ শত টাকা করে। (ছোট বড় মিলিয়ে)। অপর দিকে চাউল এবং তৈল এর দাম একই রয়েছে। বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে চাউল। ৫০ থেকৈ ৬০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। দাম বেড়েছে তৈলের প্রতিলিটার তৈল বিক্রি হচ্ছে ১শত ৬০ টাকা করে। তবে টিসিবির তৈল প্রতিলিটার ১০ টাকা, চিনি এবং পেয়াজ ৫ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে। অপর দিকে গুড় বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৭০ টাকা করে, মুড়ি ১২০ টাকা, ছোলা ৭০ টাকা, কাঁচা মরিচ ২০ টাকা, বোম্বাই মরিচ ১ হালি ২০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। বাজারের অনেক দোকানেই মুল্য তালিকা টানানো নেই। এর কারন জানতে চাইলে কেউ কোন উত্তর দিতে রাজী হয়নি। এ ব্যাপারে প্রশাসনের দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন বলে অনেকেই মনে করছেন।