যোগদান করেই প্রশংসিত বানারীপাড়ার ওসি হেলাল উদ্দিন

প্রকাশিত: ৭:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০২০

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি ॥

চৌকস ইন্সপেক্টর মো. হেলাল উদ্দিন বানারীপাড়া থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে যোগদানের মাত্র চারদিনেই আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছেন। বানারীপাড়াকে শান্তির জনপদে রূপান্তর করতে তিনি যোগদানের পর থেকেই সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক ও ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অব্যাহত রেখেছেন।

যোগদানের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চারজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীকে মাদক সহ গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন। এদিকে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সঙ্গে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভার ধারাবাহিকতায় রবিবার সকালে তিনি বানারীপাড়ার বিশারকান্দি ইউনিয়নে কমিউনিটি পুলিশিং সভা করেছেন।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় বিশারকান্দি ইউনিয়নের চৌমোহনা বাজারে বিশারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-প্রচার সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শান্ত’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হেলাল উদ্দিন বলেন মাদকসেবী, ব্যবসায়ী, জঙ্গি, সন্ত্রাসী ও ইভটিজারসহ অপরাধীদের ঠাঁই বানারীপাড়ার মাটিতে হবে না। এদেরকে নির্মূল করে আইন শৃঙ্খলা সমুন্নত ও শান্তিময় পরিবেশ বিরাজমান রাখা হবে।

আওয়ামী লীগ নেতা জাকির হোসেন বাহাদুরের সঞ্চালনায় এছাড়াও বক্তৃতা করেন বিশারকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মিয়া, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এডওয়ার্ড বিশ্বাস নান্নু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য জামাল পারভেজ,আওয়ামী লীগ নেতা আ. মজিদ হাওলাদার প্রমুখ। শনিবার বিকেলে তিনি চাখার ইউনিয়নে একই সভা করেন। এদিকে ওসি মো. হেলাল উদ্দিন থানার প্রধান ফটকে জনসাধারণের আইনী সহায়তা পাওয়ার সুবিধার্থে ‘সেবাবক্স’ ও বিভিন্ন স্থানে সচেতনতামূলক ফেস্টুন সাঁটিয়েছেন। ওসি মো. হেলাল উদ্দিনের ইতিবাচক এ কর্মকান্ডে শুরুতেই তিনি প্রশংসিত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ আগস্ট সকালে চৌকস ইন্সপেক্টর মো. হেলাল উদ্দিন বানারীপাড়া থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন। এর আগে তিনি উজিরপুর থানায় ইন্সপেক্টর (তদন্ত) হিসেবে তিন বছর সততা ও কর্তব্যনিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে প্রশংসা ও সুনাম অর্জন করেন। তিনি টানা চার বার বরিশাল রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ তদন্ত কর্মকর্তা নির্বাচিত হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

Sharing is caring!