মোংলায় তালুকদার আব্দুল খালেক’র ৭শ’ পরিবারকে ত্রাণ বিতরণ

প্রকাশিত: ৭:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

মোঃ মিজানুর রহমান,মোংলা প্রতিনিধি ::

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন।সুতরাং আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে কেউ অপকর্ম করলে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবেনা। লেবাসধারীরা দলের অনেক ক্ষতি করেছেন।সবাই সাবধান হয়ে যান।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোন দুষ্কৃতিকারী সুবিধাবাদীদের দলে ঠাঁই দেবেননা।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টায় মোংলা বন্দর শ্রমিক কর্মচারী সংঘ চত্বরে পরিবেশ,বন ও জলবায়ু উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহারের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার,মোংলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন,পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান জসিম,জাতীয় শ্রমিক লীগ মোংলা আঞ্চলিক শাখার ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক,এবং মোংলা বন্দর শ্রমিক কর্মচারী সংঘের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক সেন্টু,মোংলা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইসরাফিল হাওলাদার,মোংলা পৌর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম কবির হোসেন,উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন,পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আল মামুন,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এমরান বিশ্বাস,পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ মিজান তালুকদার,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক তারিকুল হাওলাদার,মোংলা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শিকদার ইয়াসিন আরাফাত,পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন রানা,উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সজীব খান,পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহরুখ বাপ্পি,মোংলা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রাসেল সহ আরো অনেকে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক আরো বলেন, করোনাকালীন সময়ে সরকারের পক্ষ থেকে অসহায় দরিদ্রদের নিয়মিত ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে এবং আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।আগামী মাস থেকে নদীতে ইলিশ বা জাটকা ধরার নিষেধাজ্ঞা আসছে। এসময় নদীর উপর নির্ভরশীল জেলে পরিবারগুলোকে সরকারের পক্ষ থেকে নিয়মিত সহায়তা করা হবে।আমাদের মোংলা-রামপালের এমপির পক্ষ থেকে পৌর এলাকার ৭শত পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হলো।প্রয়োজনে আরো সহায়তা করা হবে।

 

Sharing is caring!