মেহেন্দিগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণ, অতঃপর অন্ত:সত্ত্বা


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ২:৫৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০

মনির দেওয়ান, মেহেন্দিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥

মেহেন্দিগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণন অতঃপর অন্ত:সত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনা সূত্রে জানা যায়, মেহেন্দিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের পশ্চিম সাদেকপুর ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা দিনমজুর আবুল মিঝির প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়ে মায়া বেগম-কে (ছদ্মনাম) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী বাড়ির ওয়াজউদ্দিন কাজীর ছেলে রনি কাজী ঘর থেকে নিয়ে তার অপর দুই বন্ধু আলআমিন ও হাছান সহ তিনজন গণধর্ষণ করে।

ধর্ষিতার বাবা আবুল মিঝি জানান, গত রমজান মাসে তার মেয়ে গণধর্ষনের শিকার হয় এবং পরবর্তীতে অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়লে ঘটনাটি এলাকায় জানা জানি হয়ে যায়। পরে ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ধর্ষক রনির মা তাছলিমা বেগম পাতারহাট বন্দরের মেসার্স নওজোয়ান ফার্মেসীর স্বত্বাধিকারী ডাক্তার জাকির হোসেন-কে দেখিয়ে ধর্ষিতা কিশোরীকে জোরপূর্বক ভ্রূণ নষ্ট করার জন্য ওষুধ সেবন করান। যার সত্যতা স্বীকার করেছেন ডাক্তার জাকির হোসেন। ধর্ষণকারীরা এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিতে সাহস পাচ্ছে না ভুক্তভোগীর পরিবার।

বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান ও বিচার চেয়ে কিশোরীর বাবা দিনমজুর আবুল মিঝি স্থানীয় ইউপি সদস্য মনির চাপরাশীকে আবহিত করেন বলে জানান তিনি। এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মনির চাপরাশীর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, দিনমজুর আবুল মিঝি বিষয়টি আমাকে অবহিত করলে আমি আইনি সহয়তার জন্য মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করেছি।

তবে থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবিদুর রহমান এর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না এবং অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।