মুত্তাকী-পরহেযগার ভিত্তিক জীবন গঠনই তরীকতের মূলমন্ত্র – ছারছীনার পীর

প্রকাশিত: ৮:২০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩১, ২০২১

ছারছীনা সংবাদদাতা ॥ ছারছীনা দরবার শরীফের প্রতিষ্ঠাতা পীর কুত্বুল আলম শাহ্সূফী হযরত মাওলানা নেছার উদ্দিন আহমদ (রহ.) এর ৬৯তম এবং তদীয় জানেসীন মুজাদ্দেদে যামান হযরত মাওলানা শাহ্ আবু জা’ফর মোহাম্মাদ ছালেহ (রহ.) এর ৩১তম ইন্তেকাল বার্ষিকী উপলক্ষ্যে- ছারছীনা দরবার শরীফে আয়োজিত মাঘ মাসের ঈছালে ছাওয়াব মাহফিলের দ্বিতীয় দিনের তা’লীমে গতকাল হযরত পীর ছাহেব কেবলা একথা বলেন। দ্বিতীয় দিবসে বাদ ফজর হতে জিকির, মুরাকাবা ও তা’লীমের পর ওয়াজ নসীহত চলমান থাকে। এ সময়ে উপাধ্যক্ষ মাওলানা মো: রূহুল আমিন ছালেহী, মুদীর মাওলানা মো: মামুনুল হক, মুফতী মাওলানা মো: হায়দার হুসাইন, মাওলানা আ.জ.ম. ওবায়দুল্লাহ্ , মুহাদ্দিস মাওলানা মো: রূহুল আমীন আফসারী, মুফতী মাওলানা মাহমুদুল মুনীর হামীম, মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ্ আল মাহমুদ ও হাফেজ মাওলানা মো. বোরহান উদ্দিন ছালেহী প্রমূখ ওয়াজ করেন। বাদ জোহর মাহফিল স্টেইজে বাংলাদেশ যুব হিযবুল্লাহর কেন্দ্রীয় কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে জেলা প্রতিনিধি সহ কেন্দ্রীয় নের্তৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ জমইয়াতে হিযবুল্লাহর নাযেমে আ’লা ড. মাওলানা সৈয়দ মুহা. শরাফত আলী বলেন- যুবক সম্প্রদায়ই প্রতিটি সংগঠনের প্রাণ। যুব সমাজ জাগ্রত হলেই যেকোন আদর্শই দিকবিজয় করতে সক্ষম হয়। আমীরে হিযবুল্লাহ্ হযরত পীর ছাহেব কেবলা বলেন, শুধু নামে মুসলমান নয়, বরং আমল ও আখলাকে খাঁটি মুসলমান হতে হবে। তিনি আরো বলেন- ছারছীনার মরহুম দাদাপীর কেবলা বাংলাদেশের মুসলিম সমাজ থেকে হিন্দুয়ানী কৃষ্টি-কালচার দূরীভূত করে সাচ্চা মুসলমান তৈয়ার করেছিলেন। প্রকৃত মুসলামান সৃষ্টির ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি ব্যাপক হারে মাদরাসা ও খানকাহ্ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাই আমাদিগকে তাঁর ৬৯তম এন্তেকাল বার্ষিকীতে তাঁর আদর্শে উজ্জীবিত হবার শপথ নিতে হবে। আজ মাহফিলের শেষ দিন। বাদ এশা হামদ-না’ত, কুরআন তেলাওয়াত, মর্ছিয়া, মিলাদ-ক্বিয়াম শেষে হযরত পীর ছাহেব কেবলার সমাপনী নসীহত ও আখেরী মোনাজাতের মাধ্যেমে মাহফিল শেষ হবে ইনশাআল্লাহ্।