মাছ ধরার ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ২৯, এক জেলের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ৭, ২০১৯

ভোলার চরফ্যাশন ও মনপুরার পৃথক পৃথক স্থানে তিনটি জেলেদের মাছ ধরার ট্রলার ডুবির খবর পাওয়া গেছে। দুটি ট্রলারের মাঝি মাল্লাসহ মোট ২৯ জন জেলের নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ বিষয়টি চরফ্যাশন, দুলারহাট থানার ওসি ও কোস্টগার্ড নিশ্চিত করেছেন।গত শুক্রবার মনপুরা উপজেলা মৎস্য ঘাট থেকে সন্ধায় ১৪ জেলে ও চরফ্যাশন উপজেলার মাদ্রাজ ইউনিয়নের সামরাজ মৎসঘাটের বাবুল মাঝি ও নুরাবাদের শাজাহান মাঝির দু‘টি ট্রলার গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে গেলে বৈরি আবহাওয়ার ও ঝড়ের কবলে পরে ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। সরজমিনে নিখোঁজ পরিবারের কাছ থেকে জানা যায়, ২৯ জেলের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ড মো. খলিল মাঝি বলেন, অল্পের জন্য আমরা বেঁচে এসেছি। চোখের সামনে ২০/২৫টি ট্রলার ডুবে যেতে দেখেছি। আমরা দূর থেকে এ ঘটনা দেখে দ্রুত চালিয়ে ঘাটে এসেছি। আল্লাহ রক্ষা করছে।আজ রবিবার একজনের মরদেহ উদ্ধারের সংবাদ জানিয়েছেন উপজেলা ক্ষুদ্র মৎস্যজীবি সমিতির সভাপতি মো. নান্নু মিয়া। তবে লাশের নাম ঠিকানা এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সামসুল আরেফীন  জানান, ট্রলার মালিক ওয়াজেদ আলী শনিবার রাতে থানায় লিখিত দিয়েছেন, তার মাছ ধরার ট্রলার শনিবার সকাল ৭টায় মনির মাঝির ১৪/১৫ জন জেলে নিয়ে সমুদ্রে মাছ শিকারে গেলে এখন পর্যন্ত তাদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। ট্রলারটি মেঘনার হাতিয়ার গ্যাসফেক্টরীর পূর্ব পাশে ডুবে যায়। নিখোঁজরা হলেন, মনির মাঝি, জিয়ার হোসেন, জুয়েল, সেলিম, বাবুল হোসেন, অলিউদ্দিন, বেলায়েত হোসেন, অজিউল্যাহ, মাকসুদ, কামাল, তছির, জাহাঙ্গীর, হজরত আলী, সামছুদ্দিন। এদের বাড়ি চরমাদ্রাজ ৮নং ওয়ার্ড, জিন্নাগড় ও রসুলপুর এলাকার বিভিন্ন স্থানে।

তিনি বলেন, সামরাজ মৎস্যঘাটের মামুন মাঝির নামের ১ জেলে উদ্ধার হয়েছে। তাদেত ট্রলার জালসহ সব হারিয়ে তারা সাঁতার কেটে নদীর কিনার এসে পৌঁছায়।এদিকে দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মিজানুর রহমান পাটওয়ারী জানান, উপজেলার নুরাবাদ ৯নং ওয়ার্ডের শাহজান মাঝির মাছ ধরার ট্রলারটি ঢালচর চ্যালেনের শিবচর নামক স্থানে শনিবার ভোর ৫টায় ডুবে যায়। এতে কোন মাঝি মাল্লার হাদিস পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ জেলেরা হলেন, শাহাজান মাঝি, সুলতান মাঝি, আজগর সর্দার, রুভেল, জামাল, রফিজল, আবদুল হাই, রবিউল ইসলাম, নাছির উদ্দিন, জসিম ও মোহাম্মদ হোসেন।

চরমাদ্রাজ ইউপি‘র চেয়ারম্যান মোজাম্মেল জমাদার মুঠোফোনে জানান, গভীর সমুদ্রে আমাদের মাদ্রাজ এলাকার ২টি ট্রলার ডুবির খবর পেয়েছি। একটির মাঝি মাল্লা উদ্ধার হয়েছে। অপর ট্রলারটি উদ্ধারে একটি ট্রলার চেষ্টা করেও প্রবল ঝড়ের জন্য ব্যর্থ হয়ে ফিরে এসেছে। তাদের খুঁজে পাওয়ার জন্যে চরফ্যাশন থানা এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করানো হয়েছে। নিখোঁজ ২৯ জেলের মধ্যে ১ জেলের লাশ উদ্ধারের সংবাদ পাওয়া গেছে।

চরফ্যাশনের দক্ষিণ আইচা কোস্টগার্ড পেটি অফিসার অলিউল্যাহ বলেন, আমরা নৌ-যান নিয়ে ঢালচর এলাকায় লাশ উদ্ধারের জন্যে ট্রহল দিচ্ছি। বিভিন্ন স্থানের সোর্সদের কাছে নিখোঁজ জেলেদের সন্ধান নেয়া চেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!