মসজিদ কমিটি নিয়ে উত্তেজনা : পুলিশের উপস্থিতিতে হাতাহাতি

প্রকাশিত: ৯:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ::
নারায়ণগঞ্জের বন্দরে পুলিশের উপস্থিতিতে মসজিদ কমিটি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বাক-বিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার বাদ জুম্মা
নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৭নং ওয়ার্ডের কুঁড়িপাড়া বাজার এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে অপ্রীতিকর ঘটনার আংশকা করছে এলাকাবাসী।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,কুঁড়িপাড়া বাজার মহল্লা জামে মসজিদের কমিটি গঠন নিয়ে নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে দু’টি গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার বাদ জুম্মা কমিটি প্রক্রিয়া শুরু হলে এ নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। খবর পেয়ে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ ফখরুদ্দিন ভূইয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলেও তার উপস্থিতিতে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়।
এ ব্যাপারে জনৈক মুসল্লী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,আমাদের মসজিদ কমিটির বর্তমান সেক্রেটারী কোরআনে হাফেজ। বিগত দিনে যারা নেতৃত্বে ছিল তারাই মসজিদ কমিটিটি সুন্দরভাবে পরিচালনা করে আসছে। কিন্তু যুদ্ধাপরাধী ওমরের ছেলে সম্রাট,সন্ত্রাসী বিল্লাল,রাজাকার সালামতউল্লাহর পুত্র ইসহাক গং মাদকসেবী মনিরুজ্জামানকে সেক্রেটারী করতে চায়। যা সম্পূর্ণ অযোক্তিক।
তারা অন্য এলাকার এবং অনিয়মিত নামাজীকে মসজিদ কমিটিতে জোরপূর্বক রাখতে চায়। তাদের অনাসৃষ্টি আবদার রক্ষা না করায় সম্রাট,বিল্লাল,ইসহাক গং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবুল সম্রাট,বিল্লাল,ইসহাক গংয়ের পক্ষ নিয়ে উস্কানীমূলক বক্তব্য দেয়। বিষয়টি প্রশাসনের উর্দ্ধতন মহলের তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া উচিত। এদিকে এ বিষয়ে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ ফখরুদ্দিন ভূইয়া জানান,আমাদের উপস্থিতিতে কোন মারামারি হয়নি সামান্য বাগবিতণ্ডা হয়েছে। তর্কাতর্কির কারণে কমিটি গঠনের জন্য ২মাস সময় বেধে দেয়া হয়েছে। তারা মাসের মধ্যে কমিটি গঠন করে মসজিদ পরিচালনা করবে।

Sharing is caring!