মসজিদে বিস্ফোরণ : তিতাসের গ্যাসের লাইনে মিলেছে দুটি লিকেজ

প্রকাশিত: ১২:০০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ::

নারায়ণগঞ্জে বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় গ্যাস লিকেজের অনুসন্ধানে নেমেছে তিতাস কর্তৃপক্ষ।

সোমবার সকাল থেকেই মসজিদের সিঁড়ি ঘেষা রাস্তার ২টি পয়েন্টে মাটি খুঁড়েছে তিতাস।

বিকাল পর্যন্ত এই খোঁড়াখুঁড়িতে মসজিদের উত্তর পাশে ২টি লাইনে লিকেজ পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেছেন তিতাসের ফতুল্লা অঞ্চলের ডিজিএম মফিজুল ইসলাম।

তিনি জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত মসজিদের অভ্যন্তরে কোন গ্যাস লাইন রয়েছে কি না সেটির প্রমাণ মিলেনি। তবে তা অনুসন্ধান মঙ্গলবার থেকে পুনরায় কাজ শুরু হবে।

এদিকে দায়িত্ব পালনে অবহেলার অভিযোগে তিতাস গ্যাসের ফতুল্লার (আঞ্চলিক বিক্রয় অফিস) চার কর্মকর্তা ও চার কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করে কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আলী মো. মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সাময়িক বরখাস্তকৃত কর্মকর্তারা হলেন- ফতুল্লা জোনের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, উপব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মাহমুদুর রহমান রাব্বী, সহকারী প্রকৌশলী এস. এম. হাসান শাহরিয়ার. সহকারী প্রকৌশলী মানিক মিয়া।

এছাড়া চার কর্মচারী হলেন- সিনিয়র সুপারভাইজার মো. মনিবুর রহমান চৌধুরী, সিনিয়র উন্নয়নকারী মো. আইউব আলী, সাহায্যকারী মো. হানিফ মিয়া, ও মো. ইসমাইল প্রধান।

অপরদিকে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতদের বাড়িতে এখনও চলছে শোকের মাতম। সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ইমরান (৩০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে বিস্ফোরণে দগ্ধ হওয়া মোট ২৭ জনের মৃত্যু হলো।

এছাড়া মামুন নামের এক যুবক সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৯ জনের অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন।

 

ফতুল্লার মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের গঠিত তদন্ত কমিটির গণশুনানিতে ১৮ জন প্রত্যক্ষদর্শী অংশগ্রহণ করেছেন। তারা সেই রাতের ঘটনার বর্ণনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন।

সোমবার বিকালে গণশুনানির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খাদিজা তাহেরা বেবী।

তিনি বলেন, ‘সোয়া তিন ঘণ্টায় ১৮ জন গণশুনানিতে অংশগ্রহণ করেন। যারা আসবেন প্রত্যেকেরই কথা আমরা শুনব। সেই রাতের ঘটনার বর্ণনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তারা জানিয়েছেন। তদন্তের স্বার্থে এগুলো প্রকাশ করা যাচ্ছে না।’

৪ সেপ্টেম্বর রাতে এশার জামাত শেষে ফতুল্লার তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক মুসল্লি দগ্ধ হন। তাদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা হয়।

Sharing is caring!