মঠবাড়িয়ায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতন

প্রকাশিত: ৭:৩৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

মো. শাহজাহান, মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি ::

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় যৌতুকের দাবিতে সেতু নামে এক গৃহবধূকে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামী, শ্বশুর -শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে। এক সন্তানের জননী নির্যাতিত ওই গৃহবধূ টিকিকাটা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড কুমিরমারা গ্রামের সেলিম হাওলাদার এর কন্যা।

২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে ওই গৃহবধূকে মারধর করে রাস্তায় ফেলে রাখা হয়। খবর পেয়ে বাবার বাড়ির লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন বলে জানা গেছেন।

জানা গেছে, ৩ বছর আগে পূর্ব সেনের টিকিকাটা গ্রামের খালেক হাওলাদারের পুত্র হানিফের সাথে বিবাহ হয় ওই গৃহবধূর। গত ১ বছর ধরে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে আসলে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা হানিফকে নগদ প্রদান করা হয়। কিন্তু এতেও নির্যাতন না থামায় গৃহবধূ শ্বশুর বাড়ি এলাকার স্থানীয় ইউপি সদস্য জসিম মিয়ার কাছে নালিশ করায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওই নারীকে তারা আবারও বেধড়ক মারধর করেন। নির্যাতনের শিকার ওই নারী মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।
গৃহবধূর স্বামী মোঃ হানিফ হাওলাদার মারধরের কথা স্বীকার করেছেন।

গৃহবধূর পিতা সেলিম হাওলাদার জানান, আমি স্থানীয় গণ্যমান্য ও জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি একাধিকবার অবগত করেছি। এ নিয়ে একাধিকবার সালিসি ব্যবস্থায়ও বসা হয়েছে। কিন্তু কোন কিছুই তারা মানে না। এখন আইনগতভাবেই যা হয় হবে। মারধরের বিষয়টি থানায় অবগত করেছি।

Sharing is caring!