মঠবাড়িয়ায় মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে লম্পট বাবা গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৪:০৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২০

মিজানুর রহমান মিজু, মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা ॥

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় নিজের কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে লম্পট বাবা সেলিম বেপারী (৫০) কে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। থানা পুলিশ মোবাইল প্রযুক্তি ব্যবহার করে শনিবার (২৫ জুলাই) ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত সেলিম উপজেলার ঘোপখালী গ্রামের আ. রব বেপারীর পুত্র। গত ৫ জুলাই সকালে ওই কিশোরীর মাকে স্থানীয় বাজারে পাঠিয়ে সুকৌশলে নিজের কিশোরী মেয়ের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালান এবং এ ঘটনা নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে ধর্ষিতাসহ তার মা ও শিশুপুত্রকে হত্যার হুমকি দেন।

ঘটনার ১৬ দিন পরে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে লম্পট স্বামী সেলিম বেপারীর বিরুদ্ধে নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে মঠবাড়িয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি দায়ের করলে লম্পট সেলিম বেপারী গা-ঢাকা দেন। শনিবার মামলা দায়েরের ৫দিন পর থানা পুলিশ তাকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে রোববার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ঘোপখালী গ্রামের আ. রব বেপারীর পুত্র ৫ সন্তানের জনক লম্পট সেলিম বেপারী নিজের মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। এতে সে রাজি না হয়ে প্রতিবাদ করলে নিজ পিতা মেয়েটির ওপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন চালান। এক পর্যায়ে চলতি মাসের ৫ জুলাই হতদরিদ্র পরিবারের মেয়েটির মাকে বাজার করার কথা বলে স্থানীয় বেতমোর বাজারে পাঠান সেলিম। এরপর একাকী ঘরে নিজ পিতা মেয়েটির মুখ চেপে ধরে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেন। পরে বাজার থেকে ফিরে এলে মেয়েটি তার মায়ের কাছে ধর্ষণের ঘটনা খুলে বলে।

এরপর ধর্ষিতার মা বিষয়টি স্বামীর কাছে জিজ্ঞেস করলে স্বামী সেলিম বেপারী ক্ষিপ্ত হয়ে বিষয়টি কাউকে জানালে এবং মামলা-মোকদ্দমা করলে ধর্ষিতা, ধর্ষিতার মা, দুই শিশুপুত্রকে খুনের হুমকি দেন। পরে স্বামীর অব্যাহত অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে আত্মীয়-স্বজনের সাথে আলাপ-আলোচনা করে ঘটনার ১৬ দিন পরে থানায় মামলাটি দায়ের করেন ধর্ষিতার মা।

Sharing is caring!