মঠবাড়িয়ায় মেধাবী ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০

মো. শাহজাহান, মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি ॥

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মেধাবী ছাত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে মৃত্যু নিশ্চিত মনে করে রাস্তায় ফেলে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ২১ সেপ্টেম্বর ভুক্তভোগী ওই ছাত্রের বাড়ির সামনের রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। ঢাকা মাইলস্টোন কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী জখমী শামীম দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের সৌদিপ্রবাসী মোস্তাফা মুন্সীর পুত্র। সস্থানীয় ও স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল শেবাচিম এ রেফার করেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের করিম মুন্সী, ডালিম, হালিম, ইউনুস ও মালেক মুন্সী কলেজ ছাত্র শামীম ওরফে বাবুকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় ওৎ পেতে থাকা ২০/২৫ জন দুর্বৃত্ত বাড়ির সামনের রাস্তায় ওই ছাত্রের গতিরোধ করে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মাটিতে ফেলে মৃত্যু নিশ্চিত মনে করে উল্লাস করে।

এ সময় স্বজনরা এগিয়ে আসলে তাদের ওপরও হামলা চালিয়ে দুর্বৃত্তায়ন ঘটায় ওই ভূমিদস্যুরা। স্বজনদের মধ্যে আহত শাহিনের জ্ঞান ফিরলেও জ্ঞান ফেরেনি সাবিনা বেগমের। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শেবাচিম থেকে ঢাকায় নেওয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
এদিকে ছেলে শামিককে রক্ষা করতে যেয়ে দুর্বৃত্তদের মারধরের শিকার হওয়া রোকেয়া বেগম জানান, ভূমিদস্যু করিম মুন্সী আমার চুল ধরে টেনে রাস্তায় ফেলে দেয় এবং আমার গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের ১টি স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, ডালিম ও ইউনুসের সাথে ডাকাত ও জলদস্যুদের সাথে যোগসাজশ রয়েছে। বিগত ১০ বছরে আমাদের কাছ থেকে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা নিয়েছে। এ বছর চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় ১০ বছরের ক্রয় সূত্রে দখলীয় জমিতে চাষ ও রোপণ করতে দিচ্ছে না। এ বারে চাঁদা না দেওয়ায় আমার ছেলেকে মেরে ফেলারও হুমকি দিয়েছিল দুর্বৃত্তরা।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি (তদন্ত) আঃ হক জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

Sharing is caring!