মঠবাড়িয়ায় ভুয়া ভোটার তালিকা দিয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৮:৩৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৮, ২০২১

মো. শাহজাহান, মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি ॥ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ছোট শৌলা শাহাদাত হোসেন দাখিল মাদ্রাসার ২০১৯ সালের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন ভুয়া ভোটার তালিকা দিয়েই সম্পন্ন হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ছোট শৌলা গ্রামে ১৯৭৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এ মাদ্রাসাটির ইআইআইএন নাম্বার ১০২৭৯৭। জানা গেছে, মাদ্রাসাটির সভাপতি মোঃ তৈয়বুর রহমান খান ও সুপারিন্টেন্ডেন্ট মাওঃ মোস্তফা কামাল ২০১৯ সালের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে অভিভাবক শ্রেণীর ভোটার তালিকা ৩১.১০.২০১৯ খ্রি. তারিখ খসড়া ভোটার তালিকা হিসেবে এবং ওই খসড়া তালিকাটিকে ১৩.১১.২০১৯ খ্রি. তারিখে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা হিসেবে অনুমোদন দেন।

 

প্রতারণামূলক প্রস্তুতকৃত ভুয়া ও বিধিবহির্ভূত ওই ভোটার তালিকা বাতিল করার জন্য প্রতিষ্ঠানটির জমিদাতা মৃত আব্দুল জব্বার হাওলাদারের পুত্র মোঃ জুয়েল হাওলাদার ১০.১২.২০১৯ খ্রি. তারিখ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন- মাদ্রাসার নতুন ম্যানেজিং কমিটি গঠন করার জন্য মাদ্রাসার সুপার মাওঃ মোস্তফা কামাল অভিভাবক সদস্য নির্বাচন করার জন্য ০৫.১২.২০১৯ খ্রিঃ তারিখ মাদ্রাসা চলাকালীন সময়ে ফরম বিতরণ করেন। আমি অভিভাবক সদস্য হওয়ার জন্যে ফরম ও ভোটার তালিকা গ্রহণ করি। ভোটার তালিকায় ভিত্তিহীন ছাত্র/ছাত্রী ও অভিভাবক/ভোটারদের নাম দেখতে পেয়ে অবৈধভাবে কমিটি গঠনের পাঁয়তারা বুঝতে পারি।

 

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রজ্ঞাপনের ১২ নং বিধি অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বেসরকারি মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণকে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে উক্ত খসড়া ভোটার তালিকা অনুমোদনের জন্য প্রত্যেক শ্রেণীকক্ষে শিক্ষার্থীকে পাঠ করে শোনানোর ব্যবস্থা করতে হবে এবং সকলের অবগতির জন্য একটি কপি নোটিশ বোর্ডে টানাতে হবে। এতে আপত্তি থাকলে আপত্তি নিষ্পত্তিপূর্বক এবং আপত্তি না থাকলে উক্ত ভোটার তালিকা চূড়ান্ত করে অনুমোদন করতে হবে। কিন্তু উক্ত মাদ্রাসায় যে ভোটার তালিকা করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ বিধিবহির্ভূত বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

 

এ ব্যাপারে মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট মাওঃ মোস্তফা কামাল জানান, ১০.১২.২০২০ খ্রি. তারিখ অভিযোগকৃত ভোটার তালিকাটি সংশোধন করা হয়েছে। সংশোধিত ভোটার তালিকাটি নিয়ে আদালতে মামলা চলমান আছে। তবে সংশোধিত ভোটার তালিকাটির সংরক্ষিত কপির ফটোকপি দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি। অন্যদিকে স্থানীয়দের দাবি,বিধিবহির্ভূত ভোটার তালিকার জবাবদিহিতা ও আইনগত ব্যবস্থা এড়াতে একজন সদস্যকে দিয়ে নাটকীয় একটি মামলা করানো হয়েছে।

 

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সুনীল চন্দ্র সেন জানান, অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ছাড়া মনগড়া ব্যক্তিদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা দিয়ে নির্বাচিত ম্যানেজিং কমিটি অবৈধ বলে গণ্য হবে এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অভিযোগের সত্যতা পেলে উক্ত কমিটি স্থগিত করে দিতে পারেন।