মঠবাড়িয়ায় দুই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার : পরিবারের দাবি হত্যা

প্রকাশিত: ২:০৯ অপরাহ্ণ, জুন ৩০, ২০২০

মঠবাড়িয়া সংবাদদাতা :; মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ শাকিলা বেগম (৩২) ও নাজমা বেগম (৩০) নামের দুই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে। সোমবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শাকিলা ও মঙ্গলবার সকালে নাজমার টিয়ারখালী গ্রামের স্বামীর বসতঘর হতে পৃথক ভাবে লাশ উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার ময়না তদন্তের জন্য লাশ দুটি পিরোজপুর জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত শাকিলা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড মিরুখালী রোড এলাকার মো. হাসান ঘরামীর স্ত্রী। তিনি পার্শ্ববর্তী ভান্ডারিয়া উপজেলার হরিনপালা গ্রামের কাইয়ুম হাওলাদারের মেয়ে। ওই দম্পতির ৮ মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। অপরদিকে, দুই সন্তানের জননী নাজমা বেগম উপজেলার টিয়ারখালী গ্রামের কবির হাওলাদারের স্ত্রী।

নিহত শাকিলার ভাই লোকমান হোসেন বলেন, আমার বোনের স্বামী সৌদি ফেরত হাসান মাদকাসক্ত। দীর্ঘদিন ধরে এ নিয়ে আমার বোনের সাথে স্বামীর প্রায়ই কলহ চলছিল। আমাদের ধারণা এর জের ধরে হাসান আমার বোনকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে আত্মহত্যার প্রচারণা চালাচ্ছে।

অপরদিকে, থানা পুলিশ মঙ্গলবার ভোর রাতে কীটনাশক সেবন করে নাজমা বেগমের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাটি রহস্যজনক মনে হওয়ায় পুলিশ সকালে স্বামীর বসত ঘরের বারান্দা হতে নাজমার লাশ উদ্ধার করে দুপুরে ময়না তদন্তের জন্য জেলা মর্গে প্রেরণ করে।
মঠবাড়িয়া থানার এস আই তৌফিকুল ইসলাম জানান, গৃহবধূ শাকিলা বেগম তার স্বামী হাসানের সাথে সোমবার বিকেলে কথার কাটাকাটির এক পর্যায়ে অভিমান করে ঘরে থাকা কীটনাশক খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় পরিবারের লোকজন তাকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ.জ.ম. মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, দুই নারীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে জানা যাবে হত্যা না আত্মহত্যা।