মঠবাড়িয়ায় গ্রাহকদের টাকা নিয়ে এনজিও লাপাত্তা, গ্রেফতার-৩

প্রকাশিত: ৯:১২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০২০

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা ॥

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বে-সরকারি (এনজিও) উন্নয়ন সংস্থা সানলাইফ কর্তৃক গ্রাহকের কোটি টাকা আত্মসাত মামলার ৩ আসামীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। ওই এনজিওর গ্রাহক নাছরিন বেগম বাদি হয়ে গত সোমবার রাতে সানলাইফ উন্নয়ন সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিদ্দিকুর রহমানকে প্রধান আসামী করে ৫ জন নামীয় ও অজ্ঞাত ৪ জনসহ মোট ৯ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

এ মামলার গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন- রোজি পারভীন (৪২), তার ছেলে আজিমুজ্জামান (২২) ও নাজমা বেগম (৫০)। এই তিনজনকে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার তুষখালী থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে বুধবার দুপুরে আদালতে হাজির করলে আদালত শুনানী শেষে আজিমুজ্জামানের ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে বাকি আসামিদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেফতারকৃত রোজি পারভীন ও আজিমুজ্জামান উপজেলার তুষখালী গ্রামের রুস্তুম বেপারীর স্ত্রী, ছেলে এবং নাজমা বেগম একই এলাকার মৃত বাবুল বেপারীর স্ত্রী।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়নের আমরবুনিয়া গ্রামের জনৈক লিটন তালুকদারের বাড়ি ভাড়া নিয়ে সানলাইফ উন্নয়ন সংস্থার অফিস খোলেন সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান। ওই এলাকায় এ অফিস ছাড়াও তুষখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় সকলের জন্য কল্যাণ (এসজেকে) অফিস খুলে ১০ বছর মেয়াদী ডিপিএস, সঞ্চয়, দ্বিগুণ মুনাফাসহ লোভনীয় প্রতিশ্রুতি দিয়ে শত শত গ্রাহকের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। এ মামলায় ৪৫ জন সাক্ষী ওই এনজিওর গ্রাহক এর কাছ থেকে ৫০ লাখ ৫০ হাজার ৯শত টাকা আত্মসাত করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ.জ.ম. মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, এ প্রতারণা মামলার ৩ আসামীকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আল-ফয়সাল এর আদালতে হাজির করলে আদালত ১ জনের ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে বাকি আসামিদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। তিনি আরও জানান, এ মামলার অন্য আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ওই এনজিও অফিস ছেড়ে ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান রাতের অন্ধকারে পালিয়ে গেলে গ্রাহকদের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়। টাকা ফেরত পাবার দাবিতে সোমবার ২৫ আগস্ট তুষখালী-বড়মাছুয়া সড়কে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন সহস্রাধিক গ্রাহক।

Sharing is caring!