মঠবাড়িয়ায় কলেজ ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম : থানায় মামলা

প্রকাশিত: ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

মিজানুর রহমান মিজু, মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা ॥ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে এক কলেজ ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। গত ৫দিন ধরে ওই কলেজ ছাত্রী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা শুক্রবার রাতে ৫ জন এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত ৩ সহ মোট ৮জনকে আসামী করে মঠবাড়িয়ায় থানায় মামলা দায়ের করলেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করকে সক্ষম হয়নি।

মামলা ও আহত সূত্রে জানা যায়-গত ৯ জুলাই সন্ধ্যায় উপজেলার ঘোষের টিকিকাটা গ্রামের সোহরাব জমাদ্দারের স্ত্রী শাহাবানু বেগমের হাঁস বাড়ির পুকুরে নামাকে কেন্দ্র করে একই বাড়ির মৃত শামসুল হক জমাদ্দারের পুত্র মিরাজের সাথে বাগবিতণ্ডা হয়। এর জেরে মিরাজ ও তার স্ত্রী নাসিমা শাহবানুকে অশ্লীল ভাষায় গালি গালাজ করলে মেয়ে ও বামনা বেগম ফায়জুন্নেছা মহিলা ডিগ্রী কলেজে একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী লিপি আক্তার এর প্রতিবাদ করে।

এক পর্যায় মিরাজ ও তার অপর বোন সাথীসহ ভাড়া করা ৭/৮জন ধারালো দেশীয় অস্ত্র নিয়ে লিপিকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে জখম করে। এসময় ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানী করে স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেয়। আহত লিপিকে গুরুতর অবস্থায় স্বজনরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মামলার বাদী শাহবানু বেগম অভিযোগ করেন, মামলা দায়েরের ৪ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করছে না। আসামীরা বাড়িতে থেকে আমাদের হুমকি দিচ্ছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার এসআই তৌফিকুল ইসলাম জানান, শারীরিক অসুস্থ ও আসামীরা এলাকায় না থাকায় আসামীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।