ভোলায় গণধর্ষণের ঘটনার রেশ না কাটতেই তরুণীকে ধর্ষণ

প্রকাশিত: ৫:৪১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯

ভোলার মনপুরা উপজেলায় গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার এক তরুণীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে।এ ঘটনায় সোমবার সকালে মনপুরা থানায় মামলা করেছেন ধর্ষণের শিকার তরুণী। বিকেলে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক রাকিব সওদাগরকে (২৫) গ্রেফতার করে পুলিশ। ধর্ষণের শিকার তরুণীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহার ও তরুণীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, মনপুরা উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের সোনারচর গ্রামের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. কাঞ্চন মিয়ার ছেলে রাকিব সওদাগরের সঙ্গে ছয় মাস আগে ওই তরুণীর পরিচয় হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই মধ্যে দেখা করার কথা বলে তরুণীকে ধর্ষণ করে রাকিব। পরে তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের ঘটনা কাউকে বলতে নিষেধ করা হয়। এভাবে দীর্ঘদিন ধরে তরুণীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে রাকিব। রোববার রাতে ধর্ষণ করতে গেলে তরুণী চিৎকার দিলে রাকিব পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় সোমবার সকালে রাকিবের বিরুদ্ধে মামলা করে তরুণী। পরে অভিযান চালিয়ে রাকিবকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায় পুলিশ। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।মনপুরা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন বলেন, তরুণীর ধর্ষণ মামলায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক রাকিব সওদাগরকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি ধর্ষণের শিকার তরুণীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে ২৬ অক্টোবর আড়াই বছরের সন্তানকে নিয়ে মনপুরা যাওয়ার জন্য চরফ্যাশনের বেতুয়াঘাটে গেলে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। সেখানে ধর্ষকদের তাড়িয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ করে সাকুচিয়া ইউনিয়নের সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি নজরুল। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাকে সাতদিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

Sharing is caring!