ভারতকে ধবল ধোলাই করে অস্ট্রেলিয়ার সিরিজ জয়

প্রকাশিত: ৭:২২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: ১ ম্যাচ হাতে রেখেই ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিল অস্ট্রেলিয়া। সিরিজের ২য় ওয়ানডেতেও অজিদের কাছে পরাস্ত ভারতীয়রা। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে, টপ অর্ডারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে, নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৮৯ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। জবাব দিতে নেমে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৩৮ রানে থামে ভারত।

সিডনিতে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে এদিনও ভারতীয় বোলারদের ওপর চড়াও হন দুই অজি ওপেনার ওয়ার্নার ও ফিঞ্চ। দু’জনই তুলে নেন ফিফটি। তাদের উদ্বোধনী জুটিতে দল পায় ১৪২ রান। আগের ম্যাচে ফিফটি হাঁকানো ওয়ার্নার এদিনও খেলেন ৮৩ রানের ইনিংস। অন্যদিকে ১ম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ফিঞ্চ এদিন আউট হন ৬০ রান করে।

তবে ব্যতিক্রম ছিলেন না স্টিভ স্মিথ। সময়ের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান তুলে নিয়েছেন ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি। আগের দিনও মাত্র ৬০ বলে সেঞ্চুরি হাঁকানো স্মিথ এদিনও ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। মাত্র ৬৪ বলে ১০৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ইনিংস সাজান ১৪টি চার ও ২ টি বিশাল ছক্কা দিয়ে।

টপঅর্ডারের দুর্দান্ত সূচনা অব্যাহত রাখেন ল্যাবুশেইন ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও। ৬১ বলে ৭০ রান করে আউট হন ল্যাবুশেইন।

তবে আগের ম্যাচের মতোই এদিনও অনবদ্য ম্যাক্সওয়েল। এই হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান খেলেছেন মাত্র ২৯ বলে ৬৩ রানের মারকাটারি ইনিংস। ৪টি বিশাল ছক্কার পাশাপাশি ৪টি চারও হাঁকান তিনি।

শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যানের সবার বড় ইনিংসের কল্যাণে, নির্ধারিত ওভার শেষে স্বাগতিকদের স্কোরটাও পাহাড়সমান। ৪ উইকেটে ৩৮৯।

বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালো শুরুর চেষ্টা করেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও শিখর ধাওয়ান। দু’জনে মিলে গড়েন ৫৮ রানের জুটি। এসময় ৩০ রান করে আউট হন ধাওয়ান।

ক্রিজে সেট হয়েও বড় ইনিংস খেলতে পারেন নি আগারওয়াল, শ্রেয়াস আইয়াররা। ২৮ রান করেন আগারওয়াল। আইয়ারের সংগ্রহ ৩৮ রান।

তবে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল জুটি কিছুটা সম্ভাবনা তৈরি করেন। দু’জনই চড়াও অজি বোলারদের ওপর। তবে ৮৯ রান করে কোহলির বিদায়ের পর, ম্যাচ হেলে যায় স্বাগতিকদের দিকে।

৭৬ রান করে আউট হন লোকেশ রাহুলও। আগের ম্যাচে ৯০ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলা হার্দিক পান্ডিয়া এদিন আউট হন ২৮ রান করে।

অন্যরাও সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি নিজেদেরকে। ফলে নির্ধারিত ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৩৮ রান তুলতে সক্ষম হয় ভারতীয়রা।

ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন স্টিভ স্মিথ।

টানা ২ জয়ের ফলে, ৩ ম্যাচ সিরিজের ১ ম্যাচ হাতে রেখেই ট্রফি জিতে নিল অস্ট্রেলিয়া।