ভাণ্ডারিয়া থানা পুলিশের চেষ্টায় অপহৃতা মাদ্রাসা ছাত্রী ‍উদ্ধার

প্রকাশিত: ৮:১৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২১

মো. মামুন হোসেন, ভাণ্ডারিয়া প্রতিনিধি ॥ পিরোজপুরের ভা-ারিয়া উপজেলার হেতালিয়া গ্রামের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ এর একদিন পরে উদ্ধার হয়েছে । এ ঘটনায় রোববার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ভা-ারিয়া থানায় মামলা করেছেন। অপহৃতা মাদ্রাসা ছাত্রীকে উদ্ধার সহ মামলার প্রধান আসামী ইমরান খাঁন- কে গ্রেপ্তার করে গতকাল পিরোজপুর জেল হাজতে পাঠান হয়েছে।

 

অপহৃত ছাত্রীর পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হেতালিয়া গ্রামের শহিদ জোমাদ্দারের ফিসিং ট্রলার মাঝে মধ্যে আমার বাড়ীর সামনে খালে নোঙ্গর করে থাকে। ঐ ফিসিং ট্রলারের কর্মচারী মো. ইমরান খাঁন (২৫) নামের এক যুবক ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতেন। শাহজাহান খাঁনের ছেলে মো. ইমরান খাঁন এর বাড়ী পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার শংকরপাশা গ্রামে। গত শুক্রবার মাদ্রাসাছাত্রী একই গ্রামে মামা বাড়ী বেড়াতে যায়। এবং পরের দিন শনিবার সকাল দশটার সময় বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় আফজাল হাওলাদারের বাড়ি সংলগ্ন পাকা সড়কে ওঠামাত্র মো. ইমরান খাঁন তার বোন জামাই মো. রাজিব হাওলাদারের সহায়তায় একটি মোটর সাইকেলে তুলে নিয়ে যান। মামলার বাদী ও অপহৃতা ছাত্রীর বাবা বলেন, বেশ কিছুদিন যাবত আমার মেয়েকে ইমরান খাঁন বিভিন্ন কু-প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছিল এবং আমার মেয়েকে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায়। ভা-ারিয়া থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা মো. ইমরান খাঁন ও তার ভগ্নিপতি মো. রাজিব হাওলাদারের নামে রোববার রাতে মামলা করেছেন এবং রাতেই অপহৃতা মাদ্রাসা ছাত্রীকে উদ্ধার ও প্রধান আসামী ইমরান খাঁন কে গ্রেপ্তার করে সোমবার পিরোজপুর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।