বিদ্যুত কেন্দ্রের কপার তার চুরির দায়ে দোকানিকে নির্মম নির্যাতন

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

মেজবাহউদ্দিন মাননু, কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ চুরির কপার তারসহ ধরা পড়ায় চায়ের দোকানি ৪০ বছরের শহীদুলকে নির্মম-বর্বর নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠেছে। চোখে কাপড় বেধে লোহার রড দিয়ে সমস্ত শরীর পিটিয়ে থেঁতলে দেয়া হয়েছে। এমনকি পুরুষাঙ্গে আগুনের ছ্যাঁকা দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের অভ্যন্তরে ডেকে নিয়ে এমন নির্যাতন চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিদ্যুত কেন্দ্রের অভ্যন্তরে গ্রুপ ফোর নামের একটি কোম্পানির সিকিউরিটির সদস্যরা এমন নির্দয় নির্যাতন চালায়। অবস্থার অবনতি ঘটলে ভোর রাতে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে আর কেউ খোঁজ নেয়নি।

 

শহীদুল জানান, তাকে কয়েকজন সিকিউরিটির লোক ডেকে বিদ্যুত কেন্দ্রের ভিতরে নিয়ে এমন মারধর চালায়। ভিতরের তামার তার চুরির অজুহাতে শহীদুলকে ডেকে নেয়া হয় বলে তার দাবি। শহীদুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চিকিৎসকরা শুক্রবার সকালে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্র ঘেঁষা গ্রাম ধানখালীর দাসের হাওলা গ্রামে বাড়ি শহীদুলের। তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের কর্মকর্তা প্রকৌশলী শাহমনি জিকো জানান, একটি চক্র পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের তারসহ বিভিন্ন মালামাল চুরি করে আসছিল। বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে একটি মই দিয়ে তিন চোর ভিতরে প্রবেশ করে প্রায় ৩০০ কেজি কপার তার চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় হাতে-নাতে ধরা পড়ে। এসময় দুই জন পালিয়ে গেছে। সিকিউরিটির লোকজনের সঙ্গে এদের ধ্বস্তাধস্তির সময় শহীদুল আহত হন। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

 

কলাপাড়া থানার ওসি খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সিকিউরিটি কোম্পানির লোকজনের সঙ্গে কথা বলার জন্য চেষ্টা করলেও সম্ভব হয়নি