বামনায় প্রতিবেশীর দায়ের কোপে স্কুল ছাত্রের চোখ নষ্ট

প্রকাশিত: ২:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি ॥ বরগুনার বামনা উপজেলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে অষ্টম শ্রেণীতে পড়ুয়া রাকিব (১৪) নামের শিশু ছাত্রের একটি চোখ অন্ধ করে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

জানা যায়, বামনা উপজেলার পশ্চিম গোলাঘাটা গ্রামের সুলতান মিয়ার ছেলে রাকিব। একই এলাকার বাকাবিল্লাহ (৪০) ও তৈয়ব আলী চৌকিদারের (৬৫) মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন বিরোধ চলছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার দুপুরে তৈয়ব আলী চৌকিদার, বাকাবিল্লাহর জমি জবর দখল করতে যায়। এসময়ে বাকাবিল্লাহ বাধা দিলে তাকে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করেন।

তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসে এবং স্কুল ছাত্র রাকিব স্থানীয় ইউপি সদস্য স্বপন কে ফোন দিয়ে বলে বিষয়টি জানায়। ফোন কারার অপরাধে তৈয়ব আলীর ছেলে হাসান তার হাতে থাকা দা দিয়ে রাকিবকে ল্য করে কোপ মারেন। সেই কোপ বাম চোখে লেগে গুরুতর জখম হয় রাকিব।

পরে স্থানীয়রা রাকিবসহ আহতদের উদ্ধার করে বামনা হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থা গুরুতর দেখে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেলে স্থানান্তর করেন রাকিবকে।

পরে রাকিবকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকা চক্ষু হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং চিকিৎসক তার এক চোখ বাতিল বলে ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা বলেন, তৈয়ব আলী চৌকিদারের মেজ ছেলে হাসান দা দিয়ে স্কুল ছাত্র রাকিবকে কোপ মারে। দায়ের কোপ রাকিবের বাম চোখ নষ্ট হয়ে গেছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

রাকিবের বাবা সুলতান হোসেন বলেন, আমি গরীব মানুষ। অন্যের কাজ করে কোন রকম চলি। তিনটি ছেলে সন্তান রয়েছে। টাকার অভাবে তিন সন্তানের সবাইকে পড়া লেখা করাতে পারিনা। রাকিব নিজের ইচ্ছায় পড়া লেখা করে অষ্টম শ্রেণীতে উঠেছে। আজ নিয়তির খেলায় রাকিবের একটি চোখ নাই। আমি কিছুতেই নিজেকে মানাতে পারছি না। তিনি বলেন, আমার কিছুই বলার নাই, আমার ছেলের প্রতি যারা অনাচার করেছে তাদের কঠিন বিচার চাই।

বামনা থানার ওসি মোঃ ইলিয়াছ হোসেন তালুকদার বলেন, এব্যাপারে মামলা রুজু করা হয়েছে এবং সুষ্ঠু তদন্ত সাপেে সর্বোচ্চ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।