বাবুগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি চাকুরী বিধি লংঘনের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৭:১২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার কলেজ গেট এলাকার বাবুগঞ্জ মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতিসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। এসব দুর্নীতির দায়ে তার বিরুদ্ধে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। ওই প্রধান শিক্ষক একটি হত্যা মামলায় বরখাস্ত হয়ে সার্ভিস বই পাল্টানো সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে গত ১০ ফেব্রুয়ারী উপজেলার রহমতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মোক্তার হোসেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আকবর কবীরের কাছে লিখিত এ অভিযোগ করেন।

 

শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, তথ্য গোপন, সরকারী চাকুরী বিধি লঙ্ঘন করে বাবুগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নূরুল হক ১৯৯১-৯২ শিক্ষাবর্ষে পিটিআই প্রশিক্ষণের সময় তার গ্রামের বাড়ি বাবুগঞ্জের বকশিচর গ্রামে একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেফতার হয়ে ১৫ মাস কারাবরণ করেন। এ সময় তিনি চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্তও হন। পরবর্তীতে চাকরিতে যোগদান করেন পিটিআই সম্পন্ন করেন। ১৯৯৬-৯৭ সালে ঢাকা টিচার্স কলেজ থেকে বিএড সম্পন্ন করেন। ২০০০ সালের ২ জানুয়ারীতে প্রধান শিক্ষক পদে বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে আবেদন করে প্রধান শিক্ষক হন।

 

এ ছাড়াও ২০১৮ সালে সার্ভিস বই বাধাইয়ের কথা বলে শিক্ষা অফিস থেকে সার্ভিস বই নিয়ে যায়। কিছুদিন পরে শিক্ষা অফিসকে জানায় তার সার্ভিস বইটি হারিয়ে গেছে। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়রী করেন নূরুল হক। এরপর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কাছে নতুন সার্ভিস বই পাওয়ার আবেদন করেন। নতুন সার্ভিস বই পেয়ে বিধি মোতাবেক সার্ভিস বই খোলার জন্য জেলা শিক্ষা অফিসারের অনুমতি নিয়ে জালজালিয়াতির আশ্রয় নেন প্রধান শিক্ষক নূরুল হক। পুরাতন সার্ভিস বইতে হত্যা মামলায় ১৫ মাস কারাবরণের সাময়িক বরখাস্তের কথা গোপন করে আবার সার্ভিস বই খোলেন। প্রধান শিক্ষক নূরুল হক প্রতারণা করে নতুন সার্ভিস বই বাতিলের দাবিসহ প্রধান শিক্ষকের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতিতে জড়িতের বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে।

 

প্রধান শিক্ষক নূরুল হকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ও দুর্নীতি সম্পর্কে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আকবর কবীর সাংবাদিকদের বলেন, তদন্দ সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

তবে তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল হক বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তাকে ফাঁসানোর জন্য চক্রান্ত করা হচ্ছে বলে তিনি সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন।