বাবুগঞ্জে জন্ম নিবন্ধন সার্ভার অচল, ভোগান্তি চরমে

প্রকাশিত: ৭:২৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২১

আরিফ হোসেন, বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪ টি ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধন তৈরির অনলাইন সার্ভার অচল হয়ে পড়েছে। এতে জন্ম নিবন্ধন কার্ড তুলতে না পেরে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে উপজেলার মানুষ। ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম নিবন্ধন দেওয়ার কাজে নিয়োজিত একাধিক উদ্যোক্তা জানিয়েছেন, প্রায় পঁচিশ দিন ধরে সার্ভার ডাউন। এজন্য তারা অলাইনে জন্ম নিবন্ধন তুলতে পারছেন না। এতে একদিকে মানুষ সেবা পাচ্ছেন না, অন্যদিকে তাদের আয় – রোজগারও হচ্ছে না।

 

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বর্তমানে স্কুলে শিশুদের ভর্তি, পাসপোর্ট, নতুন ভোটার ও জমির নাম খারিজসহ নানা কাজে জন্ম নিবন্ধন কার্ড অপরিহার্য। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কার্ড দেওয়া হয়। ইউনিয়ন পরিষদে একজন করে উদ্যোক্তা আছেন। অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া এসব উদ্যোক্তারা জন্ম নিবন্ধনের সরকারি ফি থেকে বেতন পান। একটি জন্ম নিবন্ধন তুলতে ১০০ টাকা ফি প্রদান করতে হয়। ৫০ টাকা সরকারি ফি, বাকি ৫০ টাকা ইউনিয়ন পরিষদের ফি।

বাবুগঞ্জ উপজেলায় জাহাঙ্গীর নগর, কেদারপুর, দেহেরগতি, রহমতপুর, চাঁদপাশা ও মাধবপাশা ইউনিয়ন সহ মোট ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে।
এর মধ্যে শুধু রহমতপুর ও চাঁদপাশা ইউনিয়নে জন্ম নিবন্ধন সার্ভার আপডেট করে কিছু কাজ করা হলেও উপজেলার জাহাঙ্গীর নগর, কেদারপুর, দেহেরগতি ও মাধবপাশা ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধন সার্ভার অচল রয়েছে।

 

সরেজমিনে দেহরগতি ও কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদ ঘুরে দেখা গেছে, জন্ম নিবন্ধনের আবেদন জমা পড়ে আছে। কিন্তু কার্ড তুলতে পারছেন না কেউ।
কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা সাইফুল ইসলাম জানান, তার পরিষদে শতাধিক জন্ম নিবন্ধনের আবেদন জমা পড়েছে। ২০/২৫ দিন পর্যন্ত ঘুরেও জন্ম নিবন্ধন পাচ্ছেন না কেউ। প্রায় বিশ দিনের বেশি সময় অনলাইন সার্ভার কার্যত বন্ধ (ডাউন) থাকায় এ সমস্যা তৈরি হয়েছে।

 

উপজেলার কেদারপুর এলাকার এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘ছেলের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য ৩ সপ্তাহের বেশি সময় হলো আবেদন করে বসে আছি। জন্ম নিবন্ধন এখনও পেলাম না। প্রতিদিন একবার করে ইউনিয়ন পরিষদে যাচ্ছি। জন্ম নিবন্ধন না পেলে ভর্তি নিচ্ছে না প্রাথমিক বিদ্যালয়।’

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘শিশু শ্রেণিতে ভর্তি হতে জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক। এখানে বয়স প্রমাণের বিধি নিষেধ আছে। মাধবপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন ‘দৈনিক আজকের বার্তা’ কে বলেন, বেশি সময় সার্ভার ডাউন থাকায় জন্ম নিবন্ধনের সেবা নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়েছে। ফলে ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম নিবন্ধন করতে আসা লোকজনের সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।