বাবার অসুস্থতা নিয়েও প্রতারণা সাহেদের

প্রকাশিত: ৩:০৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ॥ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নিজের বাবাকে করোনা নেগেটিভ সনদ দেখিয়ে অন্য একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ। নিজের বাবার অসুস্থতা নিয়েও তিনি এ প্রতারণা করায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

সাহেদের বাবা সিরাজুল করিম গত বৃহস্পতিবার রাতে মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেলে মারা যান করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। শুরুতে বাবার খোঁজ নিলেও রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানের পর সিলগালা করে দেয়ার পর আর বাবার খোঁজ নেননি সাহেদ। এমনকি তিনি মারা গেলেও খোঁজ নেননি তিনি। পরে অবশ্য তার ভাড়া বাসার কেয়ারটেকার ও গাড়ি চালককে পাঠিয়ে বাবার মরদেহ হাসপাতাল থেকে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত ৪ জুলাই সিরাজুল করিমকে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন সাহেদ। সিরাজুল করিমের বয়স ছিল প্রায় ৭০ বছর।

মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের বলা হয়েছিল, তিনটি পরীক্ষায় সিরাজুল করিমের কোভিড-১৯ নেগেটিভ আসে। তিনটি সনদও দেখানো হয়। কিন্তু তার লক্ষণ দেখেই মনে হয়েছে কোভিড-১৯ আক্রান্ত। আমাদের এখানে পরীক্ষায় তার কোভিড-১৯ পজিটিভ আসে।

হাসপাতালটির চিকিৎসকরা জানান, সাহেদের বাবার করোনা পজেটিভ আসলে তাকে আমরা ফোন দেই। আমাদের পক্ষ থেকে বলা হয়, যেহেতু আপনার হাসপাতাল কোভিড রোগীদের জন্য সেখানে আপনার বাবাকে নিয়ে যান। কিন্তু সাহেদ অস্বীকার করে বলেন, তার ওখানে চিকিৎসার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই।

ভর্তির পর প্রথম দুই দিন সাহেদ তার বাবাকে দেখতে এসেছিলেন। তবে ৬ জুলাইয়ের পর থেকে আর আসেননি ওই হাসপাতালে।

গত ৬ জুলাই র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। পরীক্ষা ছাড়াই করোনার সনদ দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ও অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিল তারা। এরপর থেকেই সাহেদ পলাতক রয়েছেন।

Sharing is caring!