বানারীপাড়া পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী রাহাদ সুমনের অব্যাহত গণসংযোগ

প্রকাশিত: ৯:২৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১

বানারীপাড়া প্রতিনিধি ॥ বরিশালের বানারীপাড়া পৌরসভার নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ড থেকে জনতার এবং ঐতিহ্যবাহী প্রেসক্লাবের মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী রাহাদ সুমনের গণসংযোগ অব্যাহত রয়েছে। বানারীপাড়া প্রেসক্লাবের ১৫ বারের নির্বাচিত সভাপতি ও দখিনের অন্যতম মেধামী এ কলম সৈনিককে তার ওয়ার্ডের সাধারণ পরিবারগুলো করোনা যোদ্ধা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে অনেক আগেই। কেননা দেশে করোনাকাল শুরু হওয়ার পর থেকে তিনি কর্মহীন অসহায় হয়ে পড়া পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। তিনি দিনরাত নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ও খাদ্য সামগ্রী নিয়ে কর্মহীন এবং দরিদ্র পরিবারের পাশে ছিলেন।

 

তিনি তার এলাকার মানুষের পাশ থেকে একটি দিনের জন্যও সরে যাননি। আরও বেশি করে তাদেরকে ভালোবেসে সুখ ও দুঃখের ভাগীদার হয়ে থেকেছেন তাদের পাশে। তীব্র শীতের সময় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে কম্বল নিয়ে গিয়ে শীতার্তদের শরীরে জড়িয়ে দিয়ে প্রকৃত মানুষের পরিচয়ে পরিচিত হয়েছেন তিনি। এখানেই তার সমাজ সেবার পরিধি শেষ নয়, প্রসূতি রোগীদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে সিজারিয়ান অপারেশন করাতে সহযোগিতা, প্রয়োজনীয় ঔষধ ক্রয় করে দেয়া সহ মানুষের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করাই তার ধ্যান-ধারণার মধ্যে থাকে। দক্ষিণ নাজিরপুর ২নং ওয়ার্ড ঘেঁষে জেগে ওঠা চরের পৈত্রিক ভিটেমাটি রক্ষার দাবীতে এলাকাবাসীর পাশে থেকে তাদের পক্ষে কথা বলেন এবং তাদের জন্য গ্রাম রক্ষা আন্দোলন করে হৃদয়ে স্থান করে নেন রাহাদ সুমন। পরে দক্ষিণ নাজির পুরের জনতা তাকে গ্রাম রক্ষা কমিটির আহবায়ক নির্বাচিত করেন।

 

সবকিছু মিলিয়ে তাকেই এবার ২নং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ তাদের পছন্দের প্রথম তালিকায় রেখেছেন বলে জানাগেছে। ইতোমধ্যেই ২নং ওয়ার্ডের সাবেক দুই সফল ও জনপ্রিয় কাউন্সিলর রফিকুল আলম ও মশিউর রহমান কামাল তাকে সাপোর্ট দিয়ে তার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ায় নতুন এক মাত্রা যুক্ত হয়েছে। যা বানারীপাড়া পৌর শাখা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক উটপাখি মার্কার প্রার্থী রাহাদ সুমনের জন্য বিজয়ের পথে আরও দুইধাপ এগিয়ে যাওয়ার সিঁড়ি তৈরি করেছে বলে সচেতন মহল মনে করেন। এছাড়াও বানারীপাড়া প্রেসক্লাব তার পক্ষে থেকে এলাকার উন্নয়নে তাদের কলম ব্যবহার করে ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ডে রূপদান করতে সহযোগিতা করবে বলেও তাদের দৃঢ় ঘোষণা রয়েছে।

 

১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত প্রেসক্লাবের কোন স্থায়ী বসার স্থান না থাকায় প্রায় ১ বছর আগে একটি সুরম্য ভবন নির্মাণ করে সাংবাদিকদের নিয়ে উদ্বোধন করেন রাহাদ সুমন। তার নেতৃত্বে বানারীপাড়ার সকল সাংবাদিক ও তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সাংবাদিকরা প্রায় ৩ যুগ পরে মাথার ওপরে একটি শীতল ছায়া পেয়েছেন। এমন একজন পরোপকারী নির্মোহ ব্যক্তিকে ২নং ওয়ার্ডের মানুষ কাউন্সিলর হিসেবে পেলে সবদিক মিলিয়ে এলাকাটি একটি সামাজিক ব্যাধি মুক্ত আলোকিত এলাকা হিসেবে বানারীপাড়া পৌরসভার বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে বলে মনে করেন সুধী সমাজ।