বানারীপাড়া পৌরসভাকে তিলোত্তমায় রূপান্তরের প্রত্যয়ে আ’লীগ প্রার্থীর ইশতেহার

প্রকাশিত: ৯:১৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১

রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া প্রতিনিধি ॥ আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিতব্য পৌরসভা নির্বাচনে বরিশালের বানারীপাড়া পৌরসভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী এডভোকেট সুভাষ চন্দ্র শীল তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। ইশতেহারে বিগত ৫ বছরের অভূতপূর্ব উন্নয়ের কথা তুলে ধরে করোনাকালীন সময়ে বাস্তবায়ন করা স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নাগরিক সচেতনতা ও সুচিকিৎসা নিশ্চিতকরণ, কর্মহীন মানুষদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান, ভাইরাস প্রতিরোধে প্রতিটি সড়কে এবং বাসাবাড়ির চারপাশে জীবাণুনাশক স্প্রে প্রদান, মাস্ক ও চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রদানের কথাও তুলে ধরা হয়।

 

তার আগামীর উন্নয়ন পরিকল্পনায় রয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনে পৌরসভার অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বানারীপাড়া পৌরসভায় ৩ শত ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ, সিটিইআইপি-২ প্রকল্পের আওতায় ১শত কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিক সড়ক, অবকাঠামোসহ টেকসই উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রহণ, বানারীপাড়া উত্তরপাড় ও দক্ষিণপাড় ব্রিজ নির্মাণ ( লঞ্চটার্মিনাল থেকে ফেরিঘাট), বানারীপাড়া পৌরসভাকে প্রথম শ্রেণীতে উন্নীতকরণ, নতুন ৪ টি গ্রাম মাছরং, রাজ্জাকপুর, মহিষাপোতা ও নরোত্তমপুরকে পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত করে আয়তন বৃদ্ধি করা, স্থানীয় সরকার বিভাগের অর্থায়নে ৫ কোটি টাকার সোলার স্ট্রিট লাইট স্থাপন, বানারীপাড়ার বিভিন্ন সড়ক প্রশস্তকরণ, গৃহহীন প্রতিটি পরিবারকে ঘরের ব্যবস্থা করা, প্রতিটি পরিবারে টেকসই কর্মসংস্থানের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ, পৌরকর প্রদান অনলাইন ব্যবস্থার মধ্যে নিয়ে আসা, মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে শিক্ষকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো সংস্কার, প্রয়োজনে নতুন অবকাঠামো নির্মাণ, শিক্ষার্থীদের জন্য প্রয়োজনীয় সুযোগ সুবিধা নিশ্চিতকরণ, সিটিজেন ডাটাবেজ তৈরি করে প্রত্যেক নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ।

 

একই সাথে বানারীপাড়া পৌরসভার তথ্য বাতায়ন -অনলাইন পোর্টাল তৈরি, ৪ কি. মি. খাল পুনঃখনন, ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনার আওতায় নতুন ২২টি প্রকল্প গ্রহণ, সাইক্লোন সেল্টার নির্মাণ, যোগাযোগ সুবিধার জন্য ১৫টি নতুন সড়ক নির্মাণ, আধুনিক ট্রাফিক সিস্টেম চালুকরণ, নতুন ৭টি ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মাণ, শতভাগ ওয়াটার সাপ্লাই নিশ্চিতকরণ, সলিড ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট, বন্দরবাজারে ৩ তলা বাণিজ্যিক কিচেন মার্কেট তৈরি, উত্তরপাড় বাজারে একটি আধুনিক ৩ তলা বাণিজ্যিক মার্কেট তৈরি, ওয়াটার বডি রেস্ট্রোরেশন, ন্যাচারাল পার্ক নির্মাণ, ওয়াক ওয়ে নির্মাণ, সন্ধ্যা নদী তীরে দৃষ্টিনন্দন ইকো-রিসোর্ট/ট্যুরিস্ট স্পট নির্মাণ, দৃষ্টি নন্দন মসজিদ মিনার নির্মাণ, বানারীপাড়া টাওয়ার নির্মাণ, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কালচারাল একাডেমি প্রতিষ্ঠা, আধুনিক অডিটোরিয়াম নির্মাণ, খেলার মাঠ উন্নয়ন ও সংস্কার, পুরো পৌরসভাকে ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের আওতায় আনা, জ্ঞান ভিত্তিক সমাজব্যবস্থা বিকাশে ওয়ার্ড ভিত্তিক গ্রন্থাহার প্রতিষ্ঠা ও বইপড়া কার্যক্রম গ্রহণ, নিয়মিত সম্মানিত নাগরিকদের সাথে মতবিনিময়, সন্ধ্যা নদী ভিত্তিক নাগরিকদের আয়বর্ধক বাণিজ্যিক কার্যক্রম গ্রহণ ও সম্প্রসারণ, শতভাগ পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম নিশ্চিতকরণ, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় পুরো পৌরসভায় সবুজায়ন কার্যক্রম গ্রহণ, পৌরসভার বিভিন্ন জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ ও শিশুদের জন্য পার্ক নির্মাণ।

 

এডভোকেট সুভাষ চন্দ্র শীল আশাবাদ ব্যক্ত করেন আগামী ৫ বছরে সকলের সহযোগিতা পেলে উল্লেখিত প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করে পৌরসভাকে তিলোত্তমায় রূপান্তর করা সম্ভব হবে।

 

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে তিনি এ ইশতেহার ঘোষণা করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সালেহ মঞ্জু মোল্লা। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য আনিচুর রহমান, বানারীপাড়া উজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম ফারুক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক এ্যাডভোকেট. মাওলাদ হোসেন সানা, সহ-সভাপতি একেএম ইউসুফ আলী,মজিবর রহমান,যুগ্ম-সম্পাদক আক্তার হোসেন মোল্লা,ওয়ার্কার্সপার্টির সম্পাদক অধ্যাপক মন্টু লাল কুন্ডু,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল হুদা,সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শরীফ উদ্দিন আহমেদ কিসলু প্রমুখ।