বানারীপাড়ায় গৃহবধুকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত: 2:40 PM, April 28, 2020

রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া(বরিশাল)প্রতিনিধি॥ বরিশালের বানারীপাড়ায় যুবক হত্যার এক সপ্তাহের ব্যবধানে এবার এক গৃহবধু হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছে। উপজেলার মধ্য ইলুহার গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চাচা ও চাচাতো ভাইয়েরা বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসা মাহমুদা (২৮) নামের এক গৃহবধুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ২৮ এপ্রিল মঙ্গলবার সকাল ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় এক সন্তানের জননী ওই গৃহবধুর মৃত্যু হয়। এ ব্যপারে নিহত ওই গৃহবধুর ভাই সবুজ হাওলাদার বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে বানারীপাড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন।মামলার আসামীরা হলো তিন সহোদর ফোরকান হাওলাদার,ফরিদ হাওলাদার ও শাকিল হাওলাদার তাদের পিতা গাফ্ফার হাওলাদার ও মা দোলেনা বেগম। মামলা সূত্রে জানা গেছে উপজেলার মধ্য ইলুহার গ্রামের তোতা মিয়া হাওলাদার ও তার ভাই গাফ্ফার হাওলাদারের পরিবারের মাঝে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিলো। এর জের ধরে ২৫ এপ্রিল দুপুরে দু’পক্ষের মধ্যে ঝগড়ার এক পর্যায়ে আসামীরা তোতা মিয়া হাওলাদার(৬৫),তার স্ত্রী হাফিজা বেগম(৫৫) ও বেড়াতে আসা তাদের মেয়ে মাহমুদাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পরে মাহমুদা বেগমকে আশংকাজনক অবস্থায় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখান থেকে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সে মারা যায়। ওই হাসপাতালে তার লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। প্রসঙ্গত উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের নলশ্রী গ্রামে কাওসার নামের এক যুবককে বাড়ি থেকে তুলে এনে পিটিয়ে আহত করার পরে ১৯ এপ্রিল ভোর রাতে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সে মারা যায়। এ ঘটনায় ২১ এপ্রিল সন্ধ্যায় বরিশাল র‌্যাব-৮ অভিযান চালিয়ে উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের করপড়া গ্রাম থেকে হত্যা মামলার আসামী পল্লী চিকিৎসক নজরুল ইসলামকে গ্রেফতারের পরে বানারীপাড়া থানায় সোপর্দ করে। ওই মামলার অপর আসামীদের এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে নিহত কাওসারের বিধবা মা মামলার বাদী রওশনআরা বেগম ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতার মাঝে দিনাতিপাত করছেন। এদিকে ওই হত্যাকান্ডের রেশ না কাটতেই মাহমুদা নামের এক গৃহবধু হত্যার শিকার হলেন।এ প্রসঙ্গে বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শিশির কুমার পাল জানান আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ###
রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া

Share Button