বানভাসি মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের ব্যতিক্রমী আয়োজন

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০
বিধান মন্ডল ফরিদপুর প্রতিনিধি ::
ফরিদপুর সদর উপজেলার আওতাধীন ডিক্রীরচর, আলিয়াবাদ, নর্থচ্যানেল ইউনিয়নে পদ্মানদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়েছে, এতে গৃহপালিত পশু সহ পরিবার নিয়ে সাধারণ মানুষ গুলো খুবই মানবেতর জীবন-যাপন করছে।
আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় ডিক্রীরচর ইউনিয়নে ফরিদপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুছায়া ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এই “ভাসমান হাসপাতাল” কার্যক্রমের শুভউদ্বোধন করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক জনাব অতুল সরকার।
জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, বন্যার সময় বেশ কিছু পানি বাহিত রোগ দেখা দেই, তাই বানভাসি মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সদর উপজেলা প্রশাসন যে উদ্যোগ গ্রহন করেছে সেটা প্রশংসার দাবিদার এবং তরুছায়া ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীদেরকেও আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি, তাদের এই কার্যক্রমের উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করছি।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম রেজা জানান, বন্যা পরিস্থিতিতে এ মানুষগুলো সার্বিক দিকেই বেশ সংকটাপন্ন অবস্থায় রয়েছে। তাদের যেন কোন সমস্যা না হয় সে জন্য আমরা সর্বদা সচেষ্ট রয়েছি। ফরিদপুরের জনবান্ধব জেলা প্রশাসক অতুল সরকার স্যারের সাথে একান্ত আলোচনায় স্যারের থেকে প্রাপ্ত ধারণা মোতাবেক ও স্থানীয় রেজওয়ান মোল্লা হাসপাতালের সহযোগিতায় এবং উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সহ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুছায়া ফাউন্ডেশনের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা ভ্রাম্যমান “ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প” চালু করেছি। তিনি আরো বলেন, যতদিন পর্যন্ত এই বন্যার প্রকোপ থাকবে ততদিন পর্যন্ত এই সেবাটি অব্যাহত থাকবে। এতে করে বানভাসি মানুষের একটি বড় অংশ যারা বিভিন্ন পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাহারা সকলেই বিশাল সুবিধা পাবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা, ডাক্তার মোঃ মাহফুজুর রহমান (বুলু), উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার, ডাক্তার সৌদ মোঃ সালেহ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক রেজওয়ান মোল্লা হাসপাতাল, তরুছায়া ফাউন্ডেশনের সদস্য বৃন্দ সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

Sharing is caring!