বাকেরগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারের ওপর হামলার মামলায় আসামি কারাগারে

প্রকাশিত: ১২:৫১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥

বাকেরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী-সন্তানসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে জখমের মামলায় প্রধান আসামি জাকির খানকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। গত মঙ্গলবার তিনি আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক আবেদন না মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। জেলে যাওয়া জাকির খান বাকেরগঞ্জ উপজেলার কবাই ইউনিয়নের হানুয়া গ্রামের জয়নাল খানের ছেলে। তিনি এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু হিসেবে পরিচিত।

এর আগে গত ২৬ আগস্ট একই গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পুলিশ কর্মকর্তা আলাউদ্দিন খানের স্ত্রী সানজিদা আক্তার ও তাদের মেয়েসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে জখম করা হয়। যা নিয়ে দৈনিক আজকের বার্তায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

তাছাড়া এ নিয়ে গত ২৭ আগস্ট আহত সানজিদা আক্তার বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে বরিশাল আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় জাকির খান ছাড়াও তার সহযোগী সোহেল খান, ফিরোজ, আল আমিন ও পলাশকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে অভিযোগ রয়েছে মামলা দায়ের করায় আলাউদ্দিনের ভাইয়ের ছেলে আরিফকে দ্বিতীয় দফায় হামলা এবং মারধর করেন আসামিরা। এ ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও হয়েছে। যার নম্বর ৪৭৯।

অপরদিকে বাদী পক্ষের অভিযোগ আসামিরা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। এর পরেও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। পুলিশ আসামিরা পলাতক বলে দাবি করলেও তাদেরকে এলাকায় বীর দর্পেই ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে। তাদের গ্রেফতার না করায় আসামিরা বাদি পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন। এই এ বিষয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সু-দৃষ্টি কামনা করেছে ভুক্তভোগী পরিবারটি।

Sharing is caring!