বাকেরগঞ্জে ধর্ষণের সালিস করতে গিয়ে ধর্ষিতাকে ২য় বার ধর্ষণ

প্রকাশিত: ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় একই রাতে ধর্ষণের সালিসি করতে গিয়ে দ্বিতীয় দফায় দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি সদস্য’র বিরুদ্ধে। এই ঘটনার তিন দিন পরে ভিকটিম গৃহবধূ বাদী হয়ে ইউপি সদস্যসহ দুই ধর্ষকের নাম উল্লেখ করে স্থানীয় থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার গারুরিয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটলেও বিষয়টি প্রকাশ পেয়েছে রবিবার সকালে। তবে ঘটনার পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও মামলায় অভিযুক্ত ইউপি সদস্য এবং অপর ধর্ষককে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ বলছে ঘটনার সাথে সাথে অভিযোগ পেলে আসামিদের গ্রেফতার করা সহজ হতো। তার পরেও অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে বলে জানিয়েছেন বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলাউদ্দিন মিলন।

 

থানায় দেয়া মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে, ‘উপজেলার গারুরিয়া এলাকার ওই গৃহবধূ গত মঙ্গলবার রাতে ওই গৃহবধূ তার দুই সন্তান নিয়ে পাশের বাড়িতে টিভি দেখতে যান। সেই সুযোগে ফাঁকা ঘরে ঢুকে আত্মগোপন করেন একই এলাকার মোহাম্মদ আলী মীরের ছেলে আলাউদ্দিন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, ‘গৃহবধূ টিভি দেখে নিজ ঘরে ফিরে রাতের খাবার খেয়ে সন্তানদের নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। এসময় আত্মগোপনে থাকা আলাউদ্দিন মীর গভীর রাতে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন।

 

পালিয়ে যাবার সময় গৃহবধূর ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে অভিযুক্ত আলাউদ্দিনকে আটক করেন। তবে খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য বাবুল খান ওই বাড়িতে গিয়ে আলাউদ্দিনকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেন বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

গৃহবধূ জানিয়েছেন, ‘ওই রাতে ধর্ষক আলাউদ্দিনকে ছেড়ে দেয়ার পরে ইউপি সদস্য বাবুল খান গৃহবধূকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ফের ধর্ষণ করেন। তবে বিষয়টি কারো কাছে প্রকাশ না করার জন্য ওই ইউপি সদস্য গৃহবধূকে হুমকি দেন। তাই ঘটনার তিন দিন পরে গত শুক্রবার রাতে গৃহবধূ বাদী হয়ে ইউপি সদস্যসহ দু’জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন।

 

মামলার বিষয়টি স্বীকার করে বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলাউদ্দিন মিলন জানান, ‘ঘটনার তিন দিন পরে অভিযোগ পেয়ে মামলা রুজু করা হয়েছে। তবে ঘটনার পর পরই অভিযোগ পেলে আসামিদের গ্রেফতার করা সহজ হতো। তা না করায় আসামিরা আত্মগোপনে চলে গেছে। তবে তাদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।