বাউফলে বিয়ের ঘটকের ধর্ষণে ভাতিজি অন্তঃসত্ত্বা

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২০

বার্তা ডেস্ক  ::

পেশায় তিনি বিয়ের ঘটক। নিজের ভাতিজিকে ফুসলিয়ে দীর্ঘদিন ধর্ষণ করেছেন। এখন ধর্ষিতা ভাতিজি ৭ মাসের অন্তঃসত্ত¡া। বিষয়টি এলাকায় প্রকাশ হওয়ার পর ঘটক চাচাকে নিয়ে ঘৃণার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাউফল উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামের বিয়ের ঘটক মান্নান গাজী (৫০) দীর্ঘদিন ধরে তারই ভাতিজিকে ধর্ষণ করেছেন।

ধর্ষণের এ ঘটনা পরিবারের সবাই জানলেও সম্মানহানীর ভয়ে চেপে যান। এক পর্যায়ে ধর্ষিতা কিশোরী অন্তঃসত্ত্বাহয়ে পড়ে। এখন তিনি ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। ধর্ষিতা কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা বলেন, আমাদের মেয়েটা একটু সহজ সরল (বুদ্ধি প্রতিবন্ধী)। এই সুযোগটাকেই কাজে লাগিয়ে মান্নান আমাদের এত বড় ক্ষতি করেছে।

এখনও কেন আইনের আশ্রয় নেয়া হয়নি এমন প্রশ্নে তাঁরা বলেন,‘ আমরা বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয় কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানিয়েছি। তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মো. মান্নান গাজীর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর স্ত্রী মিনারা বেগম বলেন,‘ এই সব ঘটনা মিথ্যা। আমার স্বামীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমার স্বামী এমন কাজ করেছে যদি কেউ তাঁর প্রমাণ দিতে পারেন, তাহলে আমি নিজ হাতে তাঁকে (আবদুল মন্নান) পুলিশের কাছে তুলে দেবো। এ বিষয়ে বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,‘এখনও কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে অব্যশই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে

Sharing is caring!