বাউফলে নির্মাণের দীর্ঘদিনেও চালু হয়নি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র

প্রকাশিত: ৮:৫০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ॥ নির্মাণের দীর্ঘদিন পরেও চালু করা সম্ভব হয়নি দু’টি ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র। পটুয়াখালীর বাউফল সদর ইউনিয়নের কায়না এবং বগা ইউনিয়নের সাবুপুরা গ্রামে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর (এইচইডি) প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ওই মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র দু’টি নির্মাণ করে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাউফল সদর ইউনিয়নের কায়না গ্রামে জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি মরুহুম রুহুল আমিনের বাড়ির সামনে ২০১৪ সালে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ শুরু হয় এবং ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে নির্মাণ কাজ শেষ হয়। অপরদিকে বগা ইউনিয়নের সাবুপুরা গ্রামে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আব্দুল মালেক এর বাড়ির সামনে ২০১৬ সালে ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের নির্মাণকাজ শুরু হয়ে ২০১৮ সালের জুন মাসে শেষ হয়। প্রতিটি তিনতলা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র এবং তিনতলা বিশিষ্ট আবাসিক বাসভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও এখন পর্যন্ত কোন চিকিৎসক কিংবা জনবল নিয়োগ এবং যন্ত্রপাতি সরবরাহ করা হয়নি। ফলে ওই দু’টি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমানে দুই মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখা যায়, দু’টি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র ভবনের বাইরে ও ভিতরে শ্যাওলা ধরেছে। ভবনের রং উঠে যাচ্ছে। অধিকাংশ দরজা জানালা নষ্ট হয়ে গেছে। হাসপাতালের বিশাল সোলার প্যানেল অযতœ-অবহেলায় পড়ে আছে। প্রতিটি কেন্দ্রে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের একজন করে প্রহরী কাজ করছেন। তারা জানান, প্রতিটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র দেখাশোনার জন্য ৩ জন লোক রয়েছেন। কিন্তু ওই সময় ১ জন প্রহরী ছাড়া কাউকে পাওয়া যায়নি। নিচতলার প্রত্যেকটি রুমের দরজা-জানালা খোলা ও অপরিচ্ছন্ন। ভিতরে অহেতুক বৈদ্যুতিক পাখা চলছে। টয়লেটগুলো নোংরা। দেখে মনে হয়েছে বহিরাগতরা টয়লেটগুলো ব্যবহার করছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার কয়েকজন ব্যক্তি বলেন,‘‘মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য সেবার জন্য এই দু’টি কেন্দ্র নির্মাণ করা হলেও এখন অবস্থা দৃষ্টে মনে হচ্ছে এগুলোর প্রতি সরকারের এখন আর সুনজর নেই। নামে মাত্র মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র নির্মাণ করে সরকারি টাকার অপচয় করা হয়েছে। তবে এলাকাবাসী মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র দু’টি দ্রুত চালু করে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরের প্রতি দাবী জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে বাউফল উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জাকির হোসেন বলেন, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র নির্মাণ করা হলেও এখন পর্যন্ত জনবল না দেয়ায় সেবা কার্যক্রম চালু করা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার অবহিত করা হয়েছে।

Sharing is caring!