বরিশাল নৌবন্দরে পাঁচ নৌযান ও ১৭ যাত্রীকে ৮২ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত: ১১:২০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কীর্তনখোলা নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেছে নৌপরিবহন অধিদপ্তর। এসময় ফিটনেস সনদসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের মেয়াদ, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ও জীবনরক্ষাকারী যন্ত্রপাতি না থাকায় পাঁচটি নৌযানে ৭৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানার পাশাপাশি মাস্ক না পরায় ১৭ যাত্রীকে পাঁচ হাজার একশত টাকা অর্থদ- দেয়া হয়।

সোমবার (০৩ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে দুপুর দুই টা পর্যন্ত নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল হাসানের নেতৃত্বে ওই মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালিত হয়। এতে সহযোগিতা করেন- বরিশাল সদর নৌ থানা পুলিশ, কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ এবং কোস্টগার্ড সদস্যরা।
তথ্য নিশ্চিত করে নৌ পরিবহন অধিদপ্তর বরিশাল কার্যালয়ের পরিদর্শক মো. নূরুল করিম জানান, ‘নৌপথে চলাচলকারী লঞ্চের ফিটনেস সনদসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, জীবনরক্ষাকারী যন্ত্রপাতি, অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে বরিশাল নদী বন্দর এলাকায় বিশেষ মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালিত হয়।

এসময় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং যন্ত্রাংশ না থাকায় বরিশাল-ভোলাসহ অভ্যন্তরীণ কয়েকটি রুটের ৫টি নৌযানে জরিমানা করেন নৌপরিবহন অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এর মধ্যে ৭৭টি নৌযানে ৭৭ হাজার টাকা এবং মাস্ক না পরায় ১৭ যাত্রীকে পাঁচ হাজার ১শত টাকা জরিমানা করা হয়।
জরিমানা দেয়া পাঁচটি নৌযানের মধ্যে এমভি গ্রীন ওয়াটারকে ১৭ হাজার, এমভি উপকূল-২ কে ১০ হাজার, সুপার সৈনিক-৬ কে ২০ হাজার টাকা, এমএল আফসারকে ২০ হাজার এবং এমভি রাতুল লঞ্চকে ১০ হাজার টাকা করে মোট ৭৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

Sharing is caring!